টেকনাফে পৃথক অভিযানে সাড়ে ৬ লাখ ইয়াবা উদ্ধার : পাচারকারীর সাখে গোলাগুলি গুলিবিদ্ধ সহ আটক ৩

DSC_0106নিজস্ব প্রতিবেদক, ১৭ এপ্রিল :
টেকনাফে পৃথক অভিযানে বিজিবির সঙ্গে ইয়াবা পাচারকারিদের গোলাগুলির ঘটনায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনসহ তিনজনকে আটক করেছে বিজিবি ; এসময় উদ্ধার করা হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ ইয়াবা ও দুই রাউন্ড গুলি।
সোমবার ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার সদর ইউনিয়নের নাইট্যং পাড়া এবং জালিয়ারদ্বীপ এলাকায় এ অভিযান চালানো হয় বলে জানান বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল আবুজার আল জাহিদ।
তবে আটকদের নাম ও পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।
আবুজার বলেন, মিয়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান আসার খবরে বিজিবির একটি দল টেকনাফের নাফ নদী সংলগ্ন নাইট্যং পাড়ায় উৎপেতে অবস্থান নেয়। সোমবার ভোর মিয়ানমার দিক থেকে একটি নৌকা আসতে দেখে বিজিবির সদস্যরা থামার জন্য সংকেত দেয়।
“ এসময় নৌকায় থাকা লোকজন বিজিবির সদস্যদের লক্ষ্য করে অতর্কিত গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। বিজিবির সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুঁড়ে। এক পর্যায়ে নৌকাটি বিজিবির সদস্যরা ঘিরে ফেলে। পরে নৌকা থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ১ জনসহ ৩ জনকে আটক করা হয়। নৌকাটি তল্লাশী চালিয়ে ১ লাখ ৫০ হাজার ইয়াবা এবং পাচারকারিরা অস্ত্র নদীর পানিতে ফেলে দিলেও ২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। ”
গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক ইয়াবা পাচারকারিকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান বিজিবির কর্মকর্তা আবুজার।
আবুজার জানান, এ ঘটনায় টেকনাফ থানায় আটকদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
একদিকে সোমবার ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার সদর ইউনিয়নের জালিয়ারদ্বীপ এলাকায় বিজিবির অন্য এক অভিযানে ৫ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবুজার আল জাহিদ।
তবে এসময় পাচারকারিরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানান তিনি।
আবুজার বলেন, মিয়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান দেশে অনুপ্রবেশ করবে খবরে বিজিবির সদস্যরা নাফ নদীর জালিয়ারদ্বীপ এলাকায় অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে সোমবার ভোর রাতে মিয়ানমার দিক থেকে একটি নৌকা আসতে দেখে বিজিবির সদস্যরা থামার জন্য সংকেত দেয়। এসময় ইয়াবা পাচারকারিরা নৌকা ফেলে অন্ধকারে ঘন প্যারাবনের ভিতর দিয়ে পালিয়ে যায়।
তিনি বলেন, “ পরে নৌকাটি তল্লাশী চালিয়ে ৩ টি ছোট বস্তার ভিতর থেকে ৫ লাখ ইয়াবা পাওয়া যায়। এসব ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ১৫ কোটি টাকা। ”
উদ্ধার করা ইয়াবাগুলো বিজিবির ব্যাটালিয়ন দপ্তরে রাখা হয়েছে বলে জানান বিজিবির কর্মকর্তা আবুজার।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like