আরাফাত সানিকে রিমান্ডে চায় পুলিশ

Arafat+Sunnyআ্ইন আদালত ডেস্ক : তথ্যপ্রযুক্তি আইনে এক তরুণীর দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার ক্রিকেটার আরাফাত সানিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন‌্য পাঁচ দিনের হেফাজতের আবেদন করেছে পুলিশ।

এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার এসআই ইয়াহিয়া রোববার দুপুরে ঢাকার হাকিম আদালতে এ আব্নে করেন।

আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, মহানগর হাকিম প্রণব কুমার হুইয়ের আদালতে আরাফাত সানিকে হাজির করা হবে।

“হাকিম আদালত তথ‌্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় জামিন দেওয়ার এখতিয়ার রাখে না। আসামি জামিন চাইলে তাকে সাইবার ট্রাইব্যুনালে আবেদন করতে হবে।”

মোহাম্মদপুর থানার ওসি জামাল উদ্দিন মীর জানান, গত ৫ জানুয়ারি এক তরুণী এই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে তথ‌্যপ্রযুক্তি আইনের এই মামলা করেন।

“তিনি অভিযোগ করেছেন, আরাফাত সানির সঙ্গে তার বেশ কয়েক বছর ধরে সম্পর্ক ছিল। তারা পরিবারকে না জানিয়ে বিয়েও করেন। সম্প্রতি তুলে নেওয়ার কথা বললে সানি ভুয়া অ‌্যাকাউন্ট খুলে ফেইসবুকে তার অশ্লীল ছবি আপলোড করেন।”

ওই অভিযোগের ভিত্তিতে রোববার সকাল ৮টার দিকে আমিন-বাজারের বাসা থেকে পুলিশ আরাফাত সানিকে গ্রেপ্তার করে বলে মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জানে আলম মুন্সী জানান।

মামলার এজাহারের তথ‌্য অনুযায়ী, ২৩ বছর বয়সী ওই তরুণীর বাসা মোহাম্মদপুরের কাটাসুর এলাকায়। মেয়েটির দাবি, সাত বছর আগে সানির সঙ্গে তার পরিচয় ও প্রেম হয়। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে তারা পরিবারকে না জানিয়ে বিয়েও করেন।

এরপর বিয়ের বিষয়টি পরিবারকে জানিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে নেওয়ার কথা বললেও সানি সময় ক্ষেপণ করতে থাকেন বলে ওই তরুণীর অভিযোগ।

মামলার এজাহারে বলা হয়, পরিবার থেকে বিয়ের জন‌্য চাপ থাকায় ওই তরুণী সানিকে বলেন, হয় তাকে তুলে নেওয়া হোক, না হলে আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদের ব‌্যবস্থা করা হোক।

এরপর গত বছর জুন মাসে সানি ফেইসবুকে একটি ভুয়া অ‌্যাকাউন্ট খুলে মেসেঞ্জারের মাধ‌্যমে তাদের কিছু অন্তরঙ্গ ছবি এবং ওই তরুণীর কয়েকটি ছবি তাকে পাঠান এবং নানাভাবে হুমকি দিতে শুরু করেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে এজাহারে।

তবে সানির মা নার্গিস আক্তার মোহাম্মদপুর থানার সামনে সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, তার ছেলে কোনো অপরাধ করেনি। টাকার লোভে ওই মেয়ে তাকে ‘ফাঁসানোর’ চেষ্টা করছে।

ওই তরুণী সানির সঙ্গে বিয়ের দাবি করলেও কোনো কাবিননামা দেখাতে পারেনি বলে দাবি করেন নার্গিস।

বাংলাদেশ জাতীয় দলে বাঁহাতি স্পিনার সানির অভিষেক হয় ২০১৪ সালে। দেশের হয়ে সর্বশেষ তিনি খেলেছেন গতবছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। তার আগে ২০১৫ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে দেশের হয়ে শেষ ওয়ানডে খেলেন।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের কারণে তাসকিন আহমেদের সঙ্গে আরাফাত সানিকেও নিষিদ্ধ করে আইসিসি।

আইসিসির তত্ত্বাবধানে সংশোধনের পর মাঠে ফিরে গত বছরের শেষ দিকে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে রংপুর রাইডার্সের হয়ে অংশ নেন সানি। শ্রীলঙ্কার দিনুকা হেতিয়ারাচ্চির পর দ্বিতীয় বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে শূন্য রানে ৩ উইকেট নিয়ে তিনি আলোচনাতেও এসেছিলেন।

সূত্র : বিডিনিউজ।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like