সাবেক প্রধান বিচারপতি রুহুল আমিন আর নেই

সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল সৈয়দ আমিনুল ইসলাম জানান, সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে বিচারপতি রুহুল আমিনের ওপেন হার্ট সার্জারি হয়েছিল। রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় মঙ্গলবার ভোরে দ্বিতীয়বার অস্ত্রোপচারের চেষ্টা হলেও তাকে বাঁচানো যায়নি।

দেশের ষোড়শ প্রধান বিচারপতি হিসেবে ২০০৮ সালের ১ জুন দায়িত্ব নেন রুহুল আমিন, অবসরে যান ২০০৯ সালের ২২ ডিসেম্বর।

যে সময়টিতে বিচারপতি রুহুল আমিন দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নেতৃত্ব দেন, তখন রাষ্ট্রক্ষমতায় সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার।

ওই সময় হাই কোর্টের বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে অবসরে যাওয়ার দিন বিচারপতি মোহাম্মদ আবদুর রশিদ এক অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, অনির্বাচিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দুই বছর তীব্র চাপে টানাপড়েনের মধ্য দিয়ে সুপ্রিম কোর্টকে কাজ করতে হয়েছিল। তখনকার প্রধান বিচারপতি এম এম রুহুল আমিনও ওই বিদায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

বিচারপতি এমএম রুহুল আমীনের জন্ম ১৯৪২ সালের ২৩ ডিসেম্বর, লক্ষ্মীপুর জেলায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬৩ সালে ইতিহাসে মাস্টার্স এবং ১৯৬৬ সালে এলএলবি করে পরের বছর তিনি জুডিশিয়াল সার্ভিসে যোগ দেন।

দীর্ঘদিন জেলা ও দায়রা আদালতে দায়িত্ব পালনের পর ১৯৯৪ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি অস্থায়ী বিচারপতি হিসেবে হাই কোর্টে নিয়োগ পান বিচারপতি রুহুল আমীন। দুই বছরের মাথায় তাকে স্থায়ী করা হয়। তাকে আপিল বিভাগে নিয়োগ দেওয়া হয় ২০০৩ সালের ১৩ জুলাই।

২০০৪ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করা রুহুল আমিন স্ত্রী ও দুই ছেলে রেখে গেছেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like