কালাম আজাদ এর ৫ টি কবিতা

14907080_1171722909530070_8168435642855227706_n১. পথ

পথ আমার চেনা ছিলো না বলেই
অচিনের পথে যাত্রা আমার
অঙ্গীকারে আবদ্ধ ছিলো হৃদয়ের কোমলতন্ত্রী
মানুষ চেনার ভান করে উতরে
পেছনের খোলা দরোজায় রেখে আসলাম
তুমি আমি সে এবং কষ্টের স্মৃতি ভা-ার
আমি পথিক বলেই পথে যাত্রা
উদাস পৃথিবীর আশ্চর্য আকর্ষণে আমায়
নিয়ে যায় মাটি ও মানুষের কাছে
অন্য রকম মানুষের কাছে
আমার মতো আরেক যাত্রীকে চিনি
যন্ত্রণার পা-ুলিপি হাতে শুধুই ঘুরে
ঘুরে ঘুরে দেয় আশ্চর্য এক যন্ত্রণা
সেই মায়াবিনি যাত্রীর কাছে জেনে গেছি
ঠিকানা আমার কোন অচিনের পথে
ধূসর আকাশের নীচে এখনো দাঁড়িয়ে বলি
হে যাত্রী যাত্রায় যেনো পাই অনন্য প্রসাদ
ঠিকানা লাভের অনির্বচনীয় স্বাদ

২. মনস্কীয়তা

সকলেই চায় আমি যেন ওরা হই
আমি চাই বিশ্বকাল আমি হয়েই রই
এই নিয়ে দানা বাঁধে দ্বান্দ্বিক হৈ রৈ
আমার জীবন আমার তাতে কিসের অত হৈ চৈ
কেন কাঁড়তে চায় স্বাধীন স্বকীয়তা
আমি তো নই কখনো নকল মনস্কীয়তা

৩. মা ও আমি

একদিকে মা আরেক দিকে আমি
এক দিকে মা অন্যদিকে তুমি
একদিকে তুমি অন্যদিকে যন্ত্রণা
একদিকে তোমার উল্লাস অন্যদিকে আমার কষ্ট!!!

৪. সূর্যাস্ত

( নিলয় রফিক বদ্দাকে)

সমুদ্রের ফেনিল প্রান্তরে আজ ঘোড়দৌড়
বাজি ফেল আর জোরে ছুট…
বছরের শেষ সুর্যাস্ত ধরতে হবে, অন্য পরাস্ত
জয়-পরাজয় নির্ণয় অমোঘ সময়ের হাতে ন্যস্ত
তূণ ভরে তীর নাও, ধনুকে যোজন করো
এটা যুদ্ধ, এখানে মরো-নয় মারো
মায়াবী পঙ্কীরাজ বীর্যহীন রাজপুত্রের দখলে
তোমার উদ্যম প্রচেষ্টা যাবে না কি বিফলে!

৫. দূষিত মন

দূষিত মন তুমি বোঝো না
রক্তাক্ত আঙুলে ছিড়েছি গোলাপ
ও আমার রাতের পাখি এ গোলাপ তুমি খোঁপায় গুঁজোনা
ওগো প্রাক্তনি অবুঝ হৃদয় যে মানে না

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like