শাটল ট্রেন আটকে, সড়ক অবরোধ করে ছাত্রলীগ কর্মীদের বিক্ষোভ

untitled-league

চট্টগ্রাম ডেস্ক:  ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিয়াজ ইরফান চৌধুরী আত্মহত্যা নয়, তাকে হত্যা করা হয়েছে এমন অভিযোগ এনে এ ঘটনার বিচার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়গামী সকল ট্রেন আটকে দিয়েছেন তার অনুসারীরা।

সোমবার সকাল আটটায় ক্যাম্পাসগামী প্রথম ট্রেনটি হাটহাজারীর ফতেয়াবাদ এলাকায় পৌঁছালে তারা আটকে দেয়। এরপর পরবর্তী ট্রেনও একই স্থানে পৌঁছালে তারা আটকে দেন। এর ফলে কোনো ট্রেনই ক্যাম্পাসে পৌঁছাতে পারেনি।

একই ঘটনায় হাটহাজারী সড়কের বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক এলাকায়ও অবরোধ করেন তারা। এছাড়া চট্টগ্রাম-রাঙামাটি সড়কের নন্দীরহাটে অবরোধ করেছেন তারা। এসময় তারা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীকে হত্যা করা হয়েছে দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল করতে থাকেন।

এদিকে অবরোধের ফলে চট্টগ্রাম-রাঙামাটি সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কে দু’পাশে আটকে আছে অসংখ্য গাড়ি। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

ট্রেন আটকে দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার সাহাব উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, ফতেয়াবাদ এলাকায় দুটি শাটল ট্রেনই আটকে দেওয়া হয়েছে। ফলে সকাল থেকে কোনো ট্রেন ক্যাম্পাসে পৌঁছাতে পারেনি।

এর আগে রোববার রাতে ক্যাম্পাসের দুই নম্বর ফটক এলাকায় অবস্থিত নিজ বাসায় ঝুলন্ত অবস্থায় দিয়াজ ইরফানের মরদেহ পাওয়া যায়। পরবর্তীতে রাতে সাড়ে ১২টার দিকে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়।

ময়নাতদন্ত শেষে সোমবার (২১ নভেম্বর) মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like