চকরিয়ায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বনকর্মীদের লক্ষ্য করে দখলবাজদের গুলিবর্ষণ

guliborsonচকরিয়া প্রতিনিধি, ২৫ অক্টোবর: কক্সবাজারের চকরিয়ার ফাঁসিয়াখালী বনবিটের আলোচিত উচিতার বিল মৌজায় বনভূমি দখল করে অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গেলে বনকর্মীদের লক্ষ্য করে উপর্যপুরি গুলি ছোড়ে দখলবাজ ভূমিদস্যুরা। উপর্যপুরি গুলি মুখে বনকর্মীরা ৭-৮টি অবৈধ বসতি উচ্ছেদ করতে পারলেও আরো অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা রয়ে গেছে সেখানে।
সোমবার দুপুর একটার দিকে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের ফাঁসিয়াখালী বনবিটের উচিতার বিল মৌজার আগর বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি।
সামাজিক বনায়নের আগর বাগানের উপকারভোগী ও আগর বাগান সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক রুহুল কাদের জানান, আগর বাগান উজাড় করে ইতিপূর্বে দখলে নেওয়া বনভূমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গেলে বনকর্মীদের লক্ষ্য করে অন্তত ২০ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এ সময় আশপাশে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এই অবস্থায় বনকর্মীরা ৭-৮টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে পারলেও আরো অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা রয়ে গেছে।
তিনি অভিযোগ করেন, সরকার দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রভাবশালী নেতাদের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে থাকা একদল চিহ্নিত দখলবাজ-ভূমিদস্যু সামাজিক বনায়নের অধীনে আগর বাগান সৃজন করে বরাদ্দ দেওয়া অন্তত ৫০ হেক্টর বনভূমি দখলে নেয়। এর পর সেখানে অস্ত্রের মজুদ করে সশস্ত্র পাহারা বসিয়ে শত শত অবৈধ বসতি গড়ে তোলার পর তা প্লট আকারে বিক্রি শুরু করে। এনিয়ে ইতিপূর্বে থানা ও আদালতে দখলবাজ-ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে মামলা করলেও তাদের তৎপরতা বন্ধ করা যায়নি। এই অবস্থায় সামাজিক বনায়নের উপকারভোগীরা তাদের নামে সরকারের বরাদ্দ দেওয়া জায়গার ধারে-কাছেও ঘেঁষতে পারছে না।
ফাঁসিয়াখালী বনবিট কর্মকর্তা মো. শাহ আলম হাওলাদার জানান, প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় থেকে দখলবাজ-ভূমিদস্যুরা সামাজিক বনায়নের আগর বাগান উজাড় করে বনভূমি দখলে নিয়ে অবৈধ স্থাপনা তৈরি করে। সোমবার বনকর্মীরা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গেলে বনকর্মীদের লক্ষ্য করে উপর্যপুরি গুলি ছোড়ে। এর পরও ৭-৮টি অবৈধ বসতি উচ্ছেদ করে দেওয়ার পর দখলবাজ-ভূমিদস্যুরা সদলবলে প্রস্তুতি নিচ্ছে উচ্ছেদ করে দেওয়া বনভূমি দখলে নিতে। বিষয়টি ইতিমধ্যে ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like