নতুন নেতৃত্ব বেছে নিতে বসেছে আওয়ামী লীগের কাউন্সিল

a-lik-council

রাজনীতি ডেস্ক: দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন পূরণে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা কাদের নিয়ে দলের নতুন কমিটি সাজাচ্ছেন, তা জানা যাবে রোববার বিকালে কাউন্সিল শেষ হওয়ার পর।

রোববার সকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে পৌঁছানোর পর ৯টা ৪০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনের কাজ শুরু করেন।

মঞ্চে তার সঙ্গে রয়েছেন কেবল দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

ছয় হাজার ৫৭০ জন কাউন্সিলর এই কাউন্সিলের মাধ‌্যমে আগামী তিন বছরের জন‌্য দলের নতুন নেতৃত্ব ঠিক করবেন।

শনিবার সকালে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দুই দিনের এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৭ সালের পর এবারই আওয়ামী লীগ দু’দিনব্যাপী সম্মেলন করছে।

১৯৯৭ সালের ৬ ও ৭ মে আওয়ামী লীগের ষোড়শ জাতীয় সম্মেলন হয়। এরপর ২০০২ সালে সপ্তদশ, ২০০৯ সালে অষ্টাদশ এবং ২০১২ সালে উনবিংশতম সম্মেলন একদিনেই হয়েছিল।

নিকট অতীতে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শুধু সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হয়। পরে কাউন্সিলররা দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার হাতে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার ক্ষমতা দিয়ে দেন।

১৯৮১ সালের ফেব্রুয়ারিতে আওয়ামী লীগের ত্রয়োদশ সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে দলের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। এরপর থেকে টানা ৩৫ বছর আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা।

সম্প্রতি তিনি বলেছেন, অবসরে যাওয়ার সুযোগ পেলে ‘খুশি’ হবেন। তবে দলীয় নেতারা বলে আসছেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

আর শেখ হাসিনা কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি গঠনের কথা বললেও দলের নেতারা তার দিকেই তাকিয়ে আছেন।

সম্মেলনের আগে থেকেই সবচেয়ে বেশি আলোচনা চলছে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে। সভাপতির পর সাংগঠনিক দিক দিয়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই পদে গত দুইবারের সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামই থাকছেন, না নতুন কোনো মুখ দেখা যাবে- সে প্রশ্ন ঘুরছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ‌্যমগুলোতেও।

২০তম সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর শনিবার বিকালে রংপুরের কাউন্সিলর হিসাবে কাউন্সিল অধিবেশনে উপস্থিত হন বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয়।

কাউন্সিলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, “শেখ হাসিনা আমাদের শেষ ভরসা। আর এখানে আছেন আরেকজন শেষ ভরসা। তিনিই নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নেবেন।”

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like