শ্বাসরুদ্ধকর সেমিতে পাকিস্তানকে হারাল বাংলাদেশের যুবারা

mens

ক্রীড়া ডেস্ক: পিছিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ। দ্বিতীয়ার্ধে শেষ মুহূর্তের গোলে সমতায় ফেরে বাংলাদেশ। এরপর অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো সেমি-ফাইনালে বাংলাদেশকে রুখতে পারেনি পাকিস্তান। ৩৫-৩০ গোলে জিতে আইএইচএফ ট্রফির ফাইনালে উঠেছে যুবারা।

শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে বুধবার শুরু থেকেই জমে ওঠে ম্যাচ। এক সময় বাংলাদেশ এগিয়ে যায়, তো পরক্ষণেই পাকিস্তান। উত্তেজনা ছড়ানো প্রথমার্ধে ১৪-১৩ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় অতিথিরা।

দ্বিতীয়ার্ধে পাকিস্তান আক্রমণের ঝড় বইয়ে গোল করতে থাকে। পাল্টা আক্রমণে জবাব দিতে থাকে বাংলাদেশও। রবিউল আওয়াল ও সোহেল রানা একাধিক সুযোগ নষ্ট না করলে দ্বিতীয়ার্ধের ম্যাচ বের করে নিতে পারত স্বাগিতকরা। তবে শেষ মুহূর্তের গোলে ২৮-২৮ সমতা ফেরায় বাংলাদেশ।

অতিরিক্ত ১০ মিনিটের খেলায় দারুণ উজ্জিবীত বাংলাদেশের আক্রমণে কোণঠাসা হয়ে পড়ে পাকিস্তান। বাংলাদেশের মেয়েদের কাছে হেরে ছেলেদের দলকে সমর্থন জানাতে আসা পাকিস্তানের মেয়েরা স্লোগান দিলেও দলকে চাঙ্গা করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত ৩৫-৩০ গোলে  জিতে উৎসবে মাতে যুবারা।

দলের জয়ে মোহাম্মদ শাকির সর্বোচ্চ ৮টি এবং লুসাই ও সোহেল রানা ৭টি গোল করেন। এছাড়া মেহেদী হাসান ৬টি, ইমরান ৪টি ও রবিউল আওয়াল ৩টি গোল করেন।

কোচ কামরুল ইসলাম কিরণ ফাইনালে উঠতে পেরে দারুণ উচ্ছ্বসিত। তবে শিষ্যদের ভুলের সমালোচনা করতে ছাড়েননি তিনি।

“খেলার অধিকাংশ সময় আমরা এগিয়ে ছিলাম। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের শেষের দিকে আমাদের কয়েকটা ভুল হয়েছিল। আক্রমণ করেও আমরা গোল মিস করেছি, ফলে ম্যাচটা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারিনি।”

ভারতকে ফাইনালের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ ধরে রেখে ছক কষার কথাও জানান কিরণ, “ভারতের সঙ্গে এর আগে আমরা খেলেছি। তাদের খেলার ধরণ কিছুটা হলেও জানি। ইনশাল্লাহ, ভারতের সঙ্গে আমরা ভালো খেলব।”

৭ গোল করা লুসাইয়ের আলাদাভাবে প্রশংসা করেন অধিনায়ক ইমরান।

“আমাদের একজন খেলোয়াড়ের কথা না বললেই নয়, লুসাই, সে আসলেই অসাধারণ ছিল। আজকে ম্যাচ ঘোরানোর কাজটা সেই শুরু করে।”

ভারতের কাছে হেরে অনূর্ধ্ব-২১ বছর বয়সী ছেলেদের এই প্রতিযোগিতায় যাত্রা শুরু করা বাংলাদেশ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৪৬-১৭ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সেমি-ফাইনালে উঠে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like