তাহানুন বশির রানা’র পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণ সভা

rana-saran-pic-1

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি, ২৮ সেপ্টেম্বর: সমাজ প্রগতি আর মুক্ত মানুষের সমাজ গড়ার সংগ্রামের কর্মীদের কাছে তাহানুন বশির রানা প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন। তাঁর আদর্শ ও চিন্তা-চেতনাকে ধারণ করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে সুন্দর-আগামীর সংগ্রামে।
কক্সবাজারের প্রগতিশীল ছাত্র ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মেধাবী সংগঠক অকাল প্রয়াত তাহানুন বশির রানা’র পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকীতে বুধবার সন্ধ্যায় জেলা যুব ইউনিয়নের উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণ সভায় বক্তারা এ কথা বলেন।
জেলা যুব ইউনিয়নের আহবায়ক শংকর বড়–য়া রুমির সভাপতিত্বে এবং যুবনেতা মোসাদ্দিক হোসেন আবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্মরণালোচনায় জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সমীর পাল, হেমন্তিকা সাংস্কৃতিক গোষ্টির সাধারণ সম্পাদক অনিল দত্ত, খেলাঘর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক করিম উল্লাহ, গণ-সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে সমন্বয়ক কল্লোল দে চৌধুরী, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি রিদুয়ান আলী, জেলা যুব ইউনিয়নের যুগ্ম আহবায়ক ইলিয়াছ মো. বেঙ্গল, আদিবাসী ফোরামের কেন্দ্রিয় নেতা মংথেœ হ্লা রাখাইন, যুব ইউনিয়ন নেতা মো. আলমগীর হাসান, মনসুর উদ্দিন, ফাতেমা আক্তার মার্টিন, নুর মোহাম্মদ, আমান উল্লাহ, যুব ইউনিয়ন কক্সবাজার শহর শাখার সদস্য সচিব ওমর ফারুক জয়, যুব ইউনিয়ন নেতা আনোয়ার হাসান চৌধুরী, আমিরুল ইসলাম মো. রাশেদ, আব্দুল আজিজ রিপন, রফিকুল ইসলাম সোহেল ও জাহাঙ্গীর আলম রুবেল প্রমুখ।
স্মরণ সভায় বক্তারা বলেন, তাহানুন বশির রানা বহুমুখি প্রতিভাধর সংগঠক ছিলেন। শিক্ষা, শিল্প, সংস্কৃতি ও সমাজ প্রগতির সংগ্রামের প্রতিটি ক্ষেত্রে তাঁর বিচরণ ছিল। তাঁর অকাল মৃত্যুতে কক্সবাজারের প্রগতিশীল ছাত্র ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে যে শূণ্যতার সৃষ্টি হয়েছে; তা পূরণে তাঁর সংগ্রামী চেতনাকে ধারণ করে সকলকে সুন্দর আগামীর লড়াইয়ের স্বপ্ন-সারথী হতে হবে।
তাহানুন বশির রানা ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রিয় সংসদের সদস্য ও জেলা সংসদের সাবেক সভাপতি ছিলেন। ছাত্র আন্দোলন শেষে তিনি যুব ইউনিয়নে যোগ দেন। তিনি কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহী জাতীয় শিশু-কিশোর সংগঠন সৈকত খেলাঘর আসরের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেন। নাট্য আন্দোলনের সংগঠক হিসেবে তিনি কক্সবাজারের থিয়েটার আর্টের সাথেও জড়িত ছিলেন। তিনি প্রতিষ্টাতা করেন কক্সবাজার শহরের অন্যতম সামাজিক ও ক্রীড়া সংগঠন উত্তরা সৃজনশীল সংসদ। ওই সংগঠনের তিনি প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। মৃত্যুর আগের কয়েক বছর তিনি সিপিবি’র রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন। এছাড়া জাতীয় সম্পদ রক্ষার আন্দোলনে তিনি তেল-গ্যাস, খণিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জেলা কমিটির সদস্য ছিলেন।
রানা গত ২০১১ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের বাসায় আকস্মিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৩৩ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি কক্সবাজার শহরের শেখ রাসেল সড়কস্থ মরহুম প্রকৌশলী বশির আহমদ ও মনোয়ারা বশিরের জৈষ্ঠ্য সন্তান। এক ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তিনি সবার বড় ছিলেন।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like