শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা সুবিধা বন্ধ

sri-lanka-immigration_

কলম্বো বিমানবন্দরে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের কাগজপত্র পরীক্ষা করছেন শ্রীলঙ্কার কর্মকর্তারা।

নিউজ ডেস্ক: শ্রীলঙ্কা বিনা নোটিসে বাংলাদেশি নাগরিকদের ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা দেওয়া বন্ধ করার পর ঢাকার পক্ষ থেকেও একই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, “তারা ওই সুবিধা বন্ধ করার আগে আমাদের অফিসিয়ালি কিছুই জানায়নি। শনিবার আমাদের যাত্রীরা কলম্বো বিমানবন্দরে নেমে আটকা পড়ার পর বিষয়টি আমরা জানতে পারি।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশের ওসি আবদুল্লাহ আল মামুনও ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার তিনি বলেন, বাংলাদেশও শ্রীলঙ্কার যাত্রীদের ওই সুবিধা দেওয়া বন্ধ রেখেছে।

“শ্রীলঙ্কাই শুরু করেছে। এরপর আমাদের কর্তৃপক্ষ একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

তবে ঠিক কী কারণে এই টানাপড়েন- সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি মামুন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, কলম্বো ওই পদক্ষেপ নেওয়ার পর ঢাকায় তাদের হাই কমিশনার ইয়াসোজা গুনাসাকেরাকে ঈদের ছুটির মধ্যে গত রোববার তলব করা হয়েছিল। কিন্তু তিনিও কোনো ব্যাখ্যা দিতে পারেননি।

ঈদের ছুটির মধ্যে ঢাকায় শ্রীলঙ্কা হাই কমিশন বন্ধ থাকায় এ বিষয়ে তাদের কোনো আনুষ্ঠানিক বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে কলম্বো গেজেটের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার প্রায় এক ঘণ্টার বৈঠকে অতিরিক্ত পররাষ্ট্র সচিব (বাইলেটারাল অ্যান্ড কনস্যুলার) কামরুল আহসান কলম্বোর আকস্মিক সিদ্ধান্তের বিষয়ে ঢাকার হতাশার কথা প্রকাশ করে ব্যাখ্যা জানতে চান শ্রীলঙ্কার হাই কমিশনারের কাছে।

“পরে গুনাসাকেরা সাংবাদিকদের বলেন, তিনি নিজেও বিষয়টি সম্পর্কে অবগত ছিলেন না। কলম্বোতে পররাষ্ট্র দপ্তরের সঙ্গে কথা বলার পর তিনি এ বিষয়ে বলতে পারবেন,” বলা হয়েছে প্রতিবেদনে।

এদিকে হিরু নিউজ নামে শ্রীলঙ্কার আরেকটি ইংরেজি নিউজ পোর্টাল তাদের প্রতিবেদনে লিখেছে, ‘আইএস জঙ্গিদের প্রবেশ ঠেকাতে’ কলম্বো কয়েকটি দেশের নাগরিকদের অন অ্যারাইভাল ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করেছে, যার মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছে।

দেশটির ইমিগ্রেশন দপ্তরের ভিসা ও সীমান্ত ব্যবস্থাপনা দপ্তরের নিয়ন্ত্রক মাদুমা বান্দারাকে উদ্ধৃত করে হিরু নিউজ লিখেছে, মাদক চোরাচালান ঠেকানোও এই পদক্ষেপের একটি উদ্দেশ্য।

শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশিদের অন অ্যারাইভাল ভিসা দেওয়া বন্ধ রাখলেও দেশটির রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান পরিবহন সংস্থা মিহিন লঙ্কা বাংলাদেশ থেকে যাত্রী নেওয়া বন্ধ রাখেনি।

ফলে শিল্পাচার্য্য জয়নুল আবেদিনের পরিবারের কয়েকজন সদস্যকে এক রাত কলম্বো বিমানবন্দরে আটকে থাকতে হয়।

জয়নুলের ছেলে মইনুল আবেদিন বলেন, তার মেয়ে, জামাতা ও তাদের ছেলেকে ওই হেনস্থায় পড়তে হয়।

“দারুণ হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। ওরা মিহিন লঙ্কার যাত্রী ছিল। কিন্তু পৌঁছানোর পর বলল, ঢুকতে দেবে না। তারপর আমাদের হাই কমিশনারে যেতে হল।”

আরও একটি পরিবারকে সেদিন একই রকম ভোগান্তিতে পড়তে হয় বলে জানান মইনুল।

সার্ক এর সদস্য বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের শুরু ১৯৭২ সালে। বিআইএমএসটিইসি, আইওআরএ এবং এশিয়া কোঅপারেশন ডায়লগে সদস্য হিসেবে রয়েছে দুই দেশই।

বাণিজ্য ও কারিগরি সহযোগিতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি রয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে।

বাংলাদেশের তৈরি পোশাক, ফ্রেইট ফরোয়ার্ডিং, ব্যাংকিং, ওষুধ শিল্প, তথ্য-প্রযুক্তি এবং স্বাস্থ্য খাতে শ্রীলঙ্কার প্রায় দশ হাজার কর্মী কাজ করছেন বলে সরকারি কর্মকর্তাদের তথ্য।

জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে শ্রীলঙ্কাকে সমর্থন দিয়ে আসছে বাংলাদেশ। দেশটিতে সাম্প্রতিক বন্যার পর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ত্রাণও পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া শ্রীলঙ্কার সেনা সদস্যদেরও দীর্ঘদিন ধরে প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছে বাংলাদেশ।

-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like