সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকায় টেলিটকের বিস্তার: তারানা

tarana-01

অর্থনীতি ডেস্ক: আগামী দুই বছরের মধ্যে দেশের প্রত্যন্ত গ্রামেগঞ্জে সরকারি মোবাইল অপারেটর টেলিটকের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বিভিন্ন খাত থেকে সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার অর্থায়ন আসছে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার গুলশানে টেলিটকের নতুন কাস্টমার কেয়ার সেন্টার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “নতুন অর্থায়নের মূল লক্ষ্য নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও লোকবল বৃদ্ধির মাধ্যমে টেলিটককে প্রতিযোগিতায় সক্ষম করে তোলা। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে নেটওয়ার্ক। কারণ গ্রামেগঞ্জে নেটওয়ার্ক না পেলে গ্রাহকরা বাধ্য হয়ে অন্য অপারেটরে চলে যাবে।”

ইতোমধ্যেই ৬১০ কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “এই অর্থায়ন যখন শুরু হবে তখন প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্ন নেটওয়ার্ক নিশ্চিত করতে পারব। জনবলের যে সঙ্কট রয়েছে সেটাও দূর করা যাবে।

“নিজস্ব অর্থায়নে ৭০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প শুরু হয়েছে। আরেকটি তিন হাজার কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। সেটি অনুমোদিত হলে ইউনিয়ন, গ্রাম পর্যায়েও থ্রিজি সেবা যাবে।”

গ্রাহকদের টেলিটক সিম ব্যবহারের আগ্রহ রয়েছে জানিয়ে তারানা বলেন, ২০১৮ এর মধ্যে নেটওয়ার্কের পরিকল্পনা সম্পূর্ণভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে টেলিটক খুব শক্তপোক্তভাবে বাজারে প্রতিযোগিতা করতে পারবে।

সদ্য প্রণীত পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৭ সালের জানুয়ারির মধ্যে ২০টি গ্রাহক সেবাকেন্দ্র চালুর পরিকল্পনা নিয়েছে টেলিটক। সে হিসাবে প্রতি মাসে তিনটি করে সেবাকেন্দ্র চালু করতে হবে। অগাস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হয়েছে বলে জানান টেলিটক কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে দুটি ডেটা কার্ড সেবারও উদ্বোধন করেন প্রতিমন্ত্রী। এগুলো হলো- ৯ টাকায় ৫০ এমবি, ১৯ টাকায় ১২৫ এমবি।

এছাড়া ফেইসবুকের এক ফলোয়ারের অব্যাহত অনুরোধে সাড়া দিয়ে চলতি ঈদেই ৫০ টাকায় এক জিবি ইন্টারনেট একমাসের মেয়াদসহ চালুর জন্য টেলিটক কর্মকর্তাদের পরামর্শ দেন প্রতিমন্ত্রী।

“আমার একজন ফলোয়ার আছেন যিনি প্রতিদিনই আমাকে আবদার করে থাকেন, ৫০ টাকায় এক জিবি একমাস। তার সম্মানার্থে মাসে একটি কি দুটি দিন অথবা অন্তত একটি সপ্তাহে এই কাজটি করা যেতে পারে। এতে একজন গ্রাহকের অনুরোধকে সম্মান দেখানো হবে। ঈদে স্পেশাল অফার হিসাবে এটি করা যায়,” বলেন তারানা।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like