‘ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশ আসা হবে সঠিক সিদ্ধান্ত’

england_team_cricket

ক্রীড়া ডেস্ক: বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড সিরিজের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কার মাঝেই ইংল্যান্ডের তিন সদস্যের নিরাপত্তা দল নিরাপত্তা পরিস্থিতি দেখতে আজ তাদের চট্টগ্রামে যাওয়ার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশের কর্মকর্তারা বলছেন, বাংলাদেশের পক্ষে সম্ভব, সবভাবেই ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলকে নিরাপত্তা দেয়া হবে। অস্ট্রেলিয়া না এসে ভুল করেছে। কিন্তু ইংল্যান্ড দল যদি এখানে খেলায় অংশগ্রহণ করে, সেটা হবে তাদের সঠিক সিদ্ধান্ত।

আগামী অক্টোবরের শুরুতে বাংলাদেশের বিপক্ষে দুটি টেস্ট এবং তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার জন্য ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে।

জুলাই মাসের এক তারিখে ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পরে ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশ সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।

এমন প্রেক্ষাপটে নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল এখন ঢাকা সফর করছে।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে ইংল্যান্ডের প্রতিনিধিরা বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের পুলিশ, সিকিউরিটি এজেন্সি এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেছেন।

ওই বৈঠক প্রসঙ্গে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র সচিব মোজাম্মেল হক খান বিবিসিকে বলছেন, ”বাংলাদেশের পক্ষে যা কিছু করা সম্ভব, সমস্ত আন্তরিকতা দিয়েই আমরা তাদের বুঝিয়েছি যে, তাতে তারা সন্তুষ্ট হয়েছে বলেই আমার কাছে মনে হয়েছে।”

এই দলটির রিপোর্ট ইতিবাচক হলে সেপ্টেম্বর মাসের শেষ নাগাদ ইংল্যান্ড দলের ঢাকা আসার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু নিরাপত্তা নিয়ে ঠিক কোন ধরনের শঙ্কার কথা বলছে ইংল্যান্ড?

স্বরাষ্ট্র সচিব ড. খান বলছেন, ”নিরাপত্তার বিষয়ে তারা কিছু প্রশ্ন করেছে। যেমন যে হোটেলে, খেলার মাঠে, এয়ারপোর্টে তাদের জন্য কি ধরণের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে? সেখানে তাদের কাছে বাংলাদেশের কর্মকর্তারা অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন।”

”তারা এখানে খেলতে আসবে কি আসবে না, সেই সিদ্ধান্ত তাদের, তবে আমার মনে হয়, নিরাপত্তা ব্যবস্থার কোন অভাব বা ক্রুটি তাদের চোখে পড়েছে, এমন কথা বলার মতো সুযোগ তাদের নেই। আমরা যেসব নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছি, তাতে তারা সন্তুষ্ট বলেই আমার কাছে মনে হয়েছে।” বলছেন মি. খান।

গুলশান হামলার বিষয়ে তারা কিছু জানতে চায়নি বলে তিনি জানান।

ইংল্যান্ডের তিন সদস্যের নিরাপত্তা দল বৃহস্পতিবার সিরিজের একটা প্রধান ভেন্যু মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেছেন।

নিরাপত্তাহীনতার যুক্তিতে অস্ট্রেলিয়া জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে বাংলাদেশে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ থেকে নিজের প্রত্যাহার করে নিয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ার একটি নিরাপত্তা দল বাংলাদেশ সফর করে ফিরে যাওয়ার পর, তাদের প্রতিবেদনের পরই সফরটি বাতিল করা হয়। সেদিক দিয়ে ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশে আসার সিদ্ধান্ত কতখানি গুরুত্বপূর্ণ ?

স্বরাষ্ট্র সচিব মোজাম্মেল হক খান বলছেন, ”অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকেও নিরাপত্তার ব্যবস্থাগুলোর কথা জানিয়েছিলাম। তারা যা চেয়েছেন, তাই দিতে রাজি ছিলাম। তারা যদি সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন যে, বাংলাদেশে আসবেন না, তাহলে আমরা যাই বলি না কেন, তারা আসবেন না। তারা আসেননি, এটা তাদের নিজস্ব চিন্তার ব্যাপার। তারা না এসে ভুল করেছেন।”

তিনি বলেন, ”ইংল্যান্ড যদি এই খেলায় অংশগ্রহণ করে, আমরা মনে করি তাদের সেটা সঠিক সিদ্ধান্তই হবে। আমি আশাবাদী, আমরা তাদের সাথে যেভাবে কথা বলেছি, তাতে তারা এই খেলায় অংশগ্রহণ করবে।”

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like