রামপাল বিরোধী মিছিলে পুলিশের বাধা, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

নিউজ ডেস্ক : রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের চুক্তি বাতিলের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির মিছিলে বাধা দিয়েছে পুলিশ। ব্যানার কেড়ে নিয়ে মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে চলছে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে রাজধানীর কাজী নজরুল ইসলাম এভেনিউর হোটেল শেরাটনের সামনে মিছিলটি বাধাপ্রাপ্ত হয়। তার আগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষ করে বেলা ১২টার দিকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে মিছিলটি যাত্রা শুরু করে।

মিছিলে নেতৃত্ব দেন, তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মো. শহিদুল্লাহ, সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, সিপিবি নেতা সরদার রুহিন হোসেন প্রিন্স, বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণ সংহতি আন্দোলনের সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকী প্রমুখ।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অভিমুখে যাত্রা করা শান্তিপূর্ণ মিছিলটি শেরাটন মোড় পার হয়ে পরিবাগ এলাকার দিকে যেতেই বিপুল সংখ্যক পুলিশ ব্যারিকেড তৈরি করে। বিক্ষোভকারীরা ব্যারিকেড ভেঙে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের ঘিরে ধরে ধাক্কা দিতে দিতে পিছু হটানোর চেষ্টা করে। এসময় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ ব্যানার কেড়ে নেয় এবং মিছিলকারীদের তাড়া করে। এসময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ করে ইটপাটকেল ছুঁড়ে। পুলিশও পাল্টা ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয় মিছিলটিকে। এসময় পুলিশ ও বিক্ষোভকারীরা ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায় লিপ্ত হয়। পুলিশ অন্তত ৭/৮ রাউন্ড গুলি ও টিয়ারশেল ছুঁড়ে।

পুলিশের তাড়া খেয়ে ছত্রভঙ্গ হওয়ার পর আন্দোলনকারীরা ওই এলাকার বিভিন্ন ভবনে ও গলিতে আশ্রয় নেয়। আবারও তারা সংগঠিত হয়ে মিছিল করার চেষ্টা করলে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলছিল। বিক্ষোভকারীরাও পুনরায় মিছিল সংগঠিত করার চেষ্টা করছিল। পুলিশ জলকামান, রায়ট কার জড়ো করছিল ওই এলাকায়।

-বাংলামেইল২৪ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like