৩ কোটি টাকায় নিম্ন আদালতে রায় পেয়েছিলেন তারেক!

শেখ সেলিম

রাজনীতি ডেস্ক : মোতাহার নামের এক বিচারককে তিন কোটি টাকা দিয়ে তারেক রহমান নিম্ন আদালতে রায় পেয়েছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

শুক্রবার রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদের দ্বি-বার্ষিকী সম্মেলনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তারেক রহমানের মামলার রায়ের প্রসঙ্গ তুলে ধরে শেখ সেলিম বলেন, ‘ওই যে একটা পোলা আছে না? ওই তারেক জিয়া। চোর, চুরি করে টাকা বাইরে নিছে। তারপর কি করছে জানেন? মোতাহের নামের এক বিচারককে ৩ কোটি টাকা ঘুষ দিছে। বলে- কোনো রকমে আমারে বাঁচান। ওই বেটা করছে কি, যেদিন রায় দিছে সেদিনই পালাইয়া গেছে। কারণ, তিনি জানেন নিম্ন আদালত যে রায় দিছে তা ঠিকমত দেয় নাই। টাকা খরচ করেছে দুইজন। অথচ মূল এক নম্বর আসামির সাজা হয়নি। এফবিআই সাক্ষী দিয়ে গেছে। উচ্চ আদালত সব দেখে রায় দিয়েছে। এখন তারা (বিএনপি) বিচার মানে না।’

উল্লেখ্য, গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে মুদ্রাপাচার মামলায় নিম্ন আদালতের খালাসের রায় বাতিল করে বিএনপি নেতা তারেক রহমানকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও ২০ কোটি টাকার অর্থদণ্ড দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সেই সঙ্গে তারেকের বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের সাত বছরের কারাদণ্ডও বহাল রাখা হয়েছে। তবে তাকে বিচারিক আদালতের দেয়া ৪০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড কমিয়ে ২০ কোটি টাকা করা হয়েছে।

ঘুষ হিসেবে আদায়ের পর ২০ কোটি টাকা বিদেশে পাচারের অভিযোগে করা এ মামলার রায়ে ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ মো. মোতাহার হোসেন ২০১৩ সালের ১৭ নভেম্বর তারেককে বেকসুর খালাস দিয়েছিলেন। আর গিয়াসউদ্দিন আল মামুনকে দেয়া হয়েছিল সাত বছর কারাদণ্ড এবং ৪০ কোটি টাকা জরিমানা।

তারেক রহমান

জঙ্গি দমনে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধের আহ্বান জানিয়ে শেখ সেলিম বলেন, ‘বাংলাদেশের মাটিতে পাকিস্তানি ভাবধারা বাস্তবায়ন হতে দেয়া হবে না। এদেশে গুপ্ত হত্যা ও জঙ্গি হামলায় ইন্দন দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত। আপনারা ঘাবরাবেন না, সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে। হয়তোবা কিছু লোকের কিছু ক্ষতি হতে পারে। এ দেশ আমার আপনার। আমি আপনি থাকবেন, জঙ্গিরা থাকবে না। ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধেই জঙ্গি নির্মূলে সফল হবো আমরা।’

মহানগর পূজা উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক জে এল ভৌমিকের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার আদর্শ সাইকা, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ প্রমুখ।

-বাংলামেইল২৪ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like