মোস্তাফিজ জাদুতে সাসেক্সের জয়

ক্রীড়া ডেস্ক: প্রথমবারের মতো আইপিএলে খেলতে গিয়ে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে চ্যাম্পিয়ন করে দেশে ফিরেছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। নির্বাচিত হয়েছিলেন আসরটির সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়। আইপিএলের ধারাবাহিকতা তিনি ধরে রেখেছেন কাউন্টিতেও।

বলতে গেলে ইংল্যান্ডের ঘরোয়া টুর্নামেন্টটিতে মোস্তাফিজ যেন আরো ক্ষুরধার। অভিষেক ম্যাচেই নিজেকে দারুণভাবে মেলে ধরেছেন। বৃহস্পতিবার এসেক্স ঈগলসের বিপক্ষে ৪ ওভার বল করে ২৩ রান খরচায় দখলে নিয়েছেন ৪ উইকেট। নির্বাচিত হয়েছেন ম্যান অব দ্য ম্যাচ। ন্যাটওয়েস্ট টি২০ ব্লাস্টের খেলায় মোস্তাফিজ জাদুতে এসেক্সের বিপক্ষে ২৪ রানের জয় পেয়েছে সাসেক্স কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব।

চেমসফোর্ডের কাউন্টি গ্রাউন্ডে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ক্রিস জর্ডানের ব্যাটিং নৈপুণ্যে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট খুইয়ে ২০০ রান করে সাসেক্স। জবাবে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারানো এসেক্সের ইনিংস থামে ১৭৬ রানে।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দলীয় ১১ রানের মাথায় নিক ব্রাউনির (১) উইকেট হারায় এসেক্স। টিমাল মিলসের বলে অসাধারণ দক্ষতায় ব্রাউনিকে তালুবন্দী করেন মোস্তাফিজ। দুর্দান্ত এই ক্যাচ দিয়েই কাউন্টিতে আলো কাড়ার শুরু বাংলাদেশের কাটার মাস্টারের।

আইপিএলের মতো ষষ্ঠ ওভারে মোস্তাফিজের হাতে বল তুলে দিলেন সাসেক্স অধিনায়ক লুক রাইট! ব্যক্তিগত প্রথম ওভারে মাত্র ৪ রান খরচ করলেন ফিজ। বাঁহাতি এই পেসারের সৃজিত চাপেই পরের ওভারে দ্রুত রান বাড়াতে গিয়ে আর্চারের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন টম ওয়েস্টলি (২৩)। আর ৩৬ রান করা ডন লরেন্সকে ফেরালেন উইল বেয়ার।

এরপর যা ছিল, তার সবটুকুই মোস্তাফিজ শো। ১৬তম ওভারে দ্বিতীয় দফায় বোলিং করতে এসে প্রথম বলে এক রান দিলেন। পরের বলে দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে এসেক্সের অধিনায়ক বরি বোপারাকে (৩২) সাসেক্সের অধিনায়ক লুক রাইটের তালুবন্দী করান কাটার মাস্টার। এই ওভারে খরচ করলেন মোটে ২ রান।

১৮তম ওভারে এসে শুরুটা ভালো হয়নি মোস্তাফিজের। তার প্রথম বলেই টেন জেসকাট ছক্কা হাঁকান। তবে এতে ভড়কে যাননি ২০ বছর বয়সি এই পেসার। তৃতীয় বলেই জেমস ফোস্টারকে (৫) সরাসরি বোল্ড করেন। এই ওভারের শেষ বল মোকাবিলা করতে আসেন কলাম টেলর। মুস্তাফিজের স্লোয়ার বুঝতে না পেরে তিনিও বোল্ডআউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন রানের খাতা না খুলতেই। এই ওভারে মুস্তাফিজ দিয়েছেন ৭ রান।

ব্যক্তিগত ও দলের শেষ ওভারে (২০তম) ১০ ব্যয় করে টেন জেসকাটের উইকেটটি ঝুলিতে জমা করেছেন।  সাসেক্সের পক্ষে ১টি করে উইকেট নিয়েছেন আর্চার, টিমাল মিলস ও উইল বেয়ার।

এর আগে সাসেক্সের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫ রানের ইনিংস খেলেন ক্রিস জর্ডান। ২১ বলে একটি চার ও পাঁচটি ছক্কায় অপরাজিত এই ইনিংস দলকে উপহার দেন তিনি। ফিলিপ সল্ট করেন ৩৩ রান। অধিনায়ক লুক রাইটের ব্যাট থেকে আসে ৩২ রান। আর ঝড়ের আভাস দেয়া রস টেলর ২৪ রানের বেশি করতে পারেননি। এসেক্সের পক্ষে সর্বোচ্চ ২টি উইকেট নেন রবি বোপারা। একটি করে উইকেট নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় নেপিয়ার, কুইন ও লরেন্সকে।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like