বাঙালি বীরের জাতি হলেও ‘বেইমান’

2016_07_20_09_19_39_D2tripSPDTxWF0ZYthzAjUyuOgiMs6_original

রাজনীতি ডেস্ক :   পঁচাত্তরের পুনরাবৃত্তি যেন না হয়— এমন সতর্কবার্তা দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সবাইকে সজাগ থাকার অনুরোধ করেছেন।

দুঃখ করে তিনি বলেছেন, ‘বাঙালি যেমন বীরের জাতি, তেমনি বেইমানের জাতি।’

‘আমাদের সজাগ থাকার প্রয়োজন আছে। মনে মনে প্রস্তুতি রাখারও প্রয়োজন আছে’, বলেন স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের সন্তান।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল আয়োজিত এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রী ওইসব কথা বলেন।

সৈয়দ আশরাফ বলেন, ‘স্বাধীনতার পরপর স্বাধীনতার স্থপতিকে পরিবার-পরিজনসহ হত্যা করার ঘটনা পৃথিবীর ইতিহাসে নেই। পঁচাত্তরের মতো মর্মান্তিক ঘটনার আর যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে, সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে মুক্তিযোদ্ধাদেরও।’

পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর একই বছরের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে হত্যা করা হয় সৈয়দ আশরাফের বাবা সৈয়দ নজরুল ইসলামসহ জাতীয় চার নেতাকে।

‘পৃথিবীতে অনেক রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর গোটা পরিবারকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে, তা পৃথিবীর অন্য কোথাও ঘটেনি। শুধু তাই-ই নয়, একটি দলকে ধংস করার চেষ্টাও চলে’, বলেন আশরাফ।

আওয়ামী লীগের শীর্ষ এ নেতা বলেন, ‘আমি খোলাখুলি বলতে চাইছি না, কিন্তু কী বোঝাতে চাইছি তা বুঝতে পারছেন বলে বিশ্বাস করি। রাজনীতিতে নীরবতা রয়েছে। ভয় এখানেই। মনে রাখবেন, গাছের পাতা যখন নড়ে না, ঝড়ের ভয় ঠিক তখনই।  আর এ কারণেই অধিক সতর্কতার সময় এসেছে। সবাইতে সতর্ক থাকতে হবে।’

আশরাফ বলেন, ‘আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছি, তারা তো কোনো সরকারের আদেশে কিংবা অধীনে মুক্তিযুদ্ধে যাইনি। আমরা নিজের ইচ্ছায় গিয়েছি, অস্ত্র হাতে নিয়েছি। যুদ্ধের পর সে অস্ত্র জমাও দিয়েছি। তারপর আর কোনোদিন তা নিয়ে নাড়াচাড়া করিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধে লাভের জন্য যাইনি, গিয়েছি জীবন দেয়ার জন্য। আমরা ভাগ্যবান যে ফিরে আসতে পেরেছি। আমাদের হাজার ভাইবোন আত্মত্যাগ করেছে।’

মুক্তিযোদ্ধা সংসদের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হেলাল মোর্শেদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজহান খান, ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, গুপ্তহত্যা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের প্রচেষ্টার প্রতিবাদে ওই সভার আয়োজন করা হয়।

-বাংলামেইল২৪ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like