জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাস প্রতিরোধে যুবলীগের নেতা কর্মীকে সজাগ থাকার আহ্বান

Jubalik pic 17.07

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি, ১৭ জুলাই: কক্সবাজারে জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাস প্রতিরোধে যুবলীগের করনীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ মাহমুদুল হক বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলামে জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসের কোন স্থান নেই। যারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার পাঁয়তারা চালাচ্ছেন তারা দেশের শত্রু, জাতির শত্রু। তাদের অপতৎপরতা প্রতিহত করতে যুবলীগের সকল স্থরের নেতা কর্মীদের সজাগ থাকতে হবে।

রবিবার (১৭ জুলাই) বিকাল ৪ টায় কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

যুবলীগ নেতা সৈয়দ মাহমুদুল হক বলেন, সাম্প্রতিক কালে দেশব্যাপী জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসী তৎপরতা দেশের মানুষকে স্তম্ভিত করেছে। দেশের বর্তমান অবস্থায় যুবলীগের কর্মী হিসাবে আমাদেরকে নিরব দর্শক হলে চলবেনা। দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ বিরাজমান অবস্থায় ছিলাম। এতে আন্তর্জাতিক বিশ্ব সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডে বিষ্ময় প্রকাশ করছে। ঠিক সে মূহুর্তে হাতে গুনা কিছু সংখ্যক যুবক দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডে সংশ্লিষ্ট বিদেশী নাগরিক, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পুরোহিত, সেবায়েত এবং ধর্ম প্রচারকের উপর অতর্কিত হালমা ও গুপ্ত হত্যা করছে। সর্বশেষ ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরা, পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিনে দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত শোলাকিয়ায় হামলার মাধ্যমে সমগ্র দেশকে অস্থিতিশীল করার প্রচেষ্টা চালায়।

তিনি বলেন, জাতির প্রত্যাশা অনুযায়ী ১৯৭১ এর মানবতা বিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় কার্যকরকে বাধাগ্রস্থ করা, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ করা, উন্নয়ন সহযোগীদের নিরুৎসাহিত করা, আন্তর্জাতিক ভাবে গড়ে উঠা দেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তীকে বিনষ্ট করা, অসাম্প্রদায়িক চেতনাবোধ বিনষ্ট করা ও সরকার বিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলতে ব্যর্থ বিএনপি জামাতের মদদে দেশে জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসের উত্তান হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, শান্তির জনপদ বাংলাদেশের সমাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করতে দেশ বিরোধী রাজনৈতিক অপশক্তি যখন মরিয়া সে মুহুর্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সকল স্থরের নেতা কর্মীদের এই অপশক্তির বিরুদ্ধে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও গ্রাম পর্যায়ে প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

জেলা যুবলীগের সভাপতি মো. খোরশেদ আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, জেলা পরিষদ প্রশাসক মোস্তাক আহমদ চেীধুরী, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা এড. ফরিদুল ইসলাম, এড. রনজিত দাশ, এড. ফরিদুল আলম, যুবলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক শহিদুল হক চৌধুরী (রাসেল), সহ সম্পাদক আহমেদ রুবাইয়াত ইফতেকার, কেন্দ্রীয় নেতা হানিফ মিয়া হৃদয়, শহিদুল হক রানা, গিয়াস উদ্দিন আজম।

জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মাহাবুুবুর রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি এড. শহিদুল্লাহ চৌধুরী, জিএম আবুল কাশেম, সোহেল আহমদ বাহাদুর, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলম, যুগ্ন-সম্পাদক মো. শহিদুল্লাহ, বাবুল ইসলাম বাহাদুর, সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম জাহিদ ইফতেখার, দপ্তর সম্পাদক নীতিশ বুড়য়া, আইন সম্পাদক এড. জিয়া উদ্দিন আহমদ, শ্রম ও জনশক্তি সহ-সম্পাদক পলক বড়ুয়া আপ্পু, পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক শোয়েব ইফতেকার, যুগ্ন-আহ্বায়ক ডালিম বড়ুয়া, আসাদ উল্লাহ, উখিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মুজিবুল হক আজাদ, সাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন পুতু, সাধারণ সম্পাদক রাজিবুল হক চৌধুরী রিকু, টেকনাফ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. নুরুল আলম, টেকনাফ পৌর যুবলীগের সভাপতি ফজল কবির প্রমুখ।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like