গুলশানে জিম্মি সংকট : হতাশা কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পে

CoxBazar_Beach20160704114624পর্যটন ডেস্ক: গুলশানে জিম্মি সংকটের ঘটনার প্রভাব পড়েছে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পে। যদিও প্রশাসনের পক্ষে বিদেশী সহ সকলের নিরাপত্তার জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহণের কথা বলা হচ্ছে। তবে তা পর্যাপ্ত নয় বলে মনে করেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী।

কক্সবাজারের পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার। রমজানে ১’শ ২০ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সৈকত পর্যটন শূন্য থাকলেও সামনে ঈদের টানা নয় দিনর ছুটিতে ভ্রমণ পিপাসুদের ঢল নামবে বলে আশা করেছিলেন। তার জন্য প্রস্তুতও ছিলেন তারা। কিন্তু গুলশানে জিম্মি সংকট, বিদেশীদের হত্যার পর সেই দৃশ্য বদলে গেছে। এখন অনেক বিদেশী বুকিং বাতিল করেছে। দেশীয়রাও নিরাপত্তার অজুহাতে বুকিং বাতিল শুরু করেছে। এ নিয়ে সংশ্লিষ্টদের মাঝে তৈরী হয়েছে হতাশা।

ভিসতা বে রিসোর্টের ব্যবস্থাপক করিম উল্লাহ জানান, গুলশানের ঘটনার পর কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পে নৈতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ঈদের ছুটিতে বুকিং পাওয়া বিদেশীরা তাদের বুকিং বাতিল করেছে। এমন কি নিরাপত্তা না থাকায় অনেক দেশীয় পর্যটকরাও কক্সবাজারে ভ্রমণে আসতে অনিহা প্রকাশ করছে।

কক্সবাজারে কয়েকটি তারকা মানের হোটেল কৃর্তপক্ষের তথ্য মতে, ইতিমধ্যে বিদেশীরা বুকিং বাতিল করতে শুরু করেছে। ফলে ঈদে তারা বিদেশী পর্যটক পাবেন কিনা বুঝতে পারছেন না।

কক্সবাজার হোটেল মালিক সমিতির সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসাইন জানান, কক্সবাজারে আগত পর্যটকদের নিরাপত্তা নিয়ে সন্তোষজনক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি কখনো। যদি গুলশানের ঘটনার পর প্রশাসনের সাথে তাদের বৈঠক হয়েছে। প্রশাসন তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আশ্বাসও দিয়েছে। তবু সংশয় রয়ে গেছে। এর প্রভাব পড়বে তাদের ব্যবসায়।

যদিও কক্সবাজারের পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার নাথ জানিয়েছেন, দেশী বিদেশী সকলকে সমান নিরাপত্তার প্রদানের সকল উদ্যোগ ও প্রস্তুতি তাদের রয়েছে। এর মধ্যে আবাসিক জোনে পত্র প্রেরণ করে বিদেশীদের সম্পর্কে তথ্য প্রদানের নিদের্শও দেয়া হয়েছে। বিদেশীদের বিশেষ নিরাপত্তা প্রদানের প্রস্তুতি পুলিশের রয়েছে।

-বাংলানিউজ২৪ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like