গুম-খুনে জড়িতদের বিচার করা হবে : খালেদা

khaleda jia

রাজনীতি ডেস্ক: ভবিষ্যতে ‘গণতান্ত্রিক সরকার’ প্রতিষ্ঠিত হলে গুম-খুনের সঙ্গে জড়িত আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যদের বিচার করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ সময় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারকে জালিম, খুনি, গুপ্তহত্যাকারী হিসেবেও আখ্যায়িত করেন তিনি।

বুধবার রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপির বিগত সরকার বিরোধী আন্দোলনে খুন ও গুমের শিকার নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যসের নিয়ে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

ইফতার পূর্ব বক্তব্যে খালেদা জিয়া অভিযোগ করে বলেন, বিএনপিকে ধ্বংস করে ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করতে সরকার ষড়যন্ত্র করছে।

ক্রসফায়ারের ঘটনাকে দুঃখজনক আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, ‘একটি নিরীহ ছেলেকে কথা নাই, বার্তা নেই- গুলি করে মেরে ফেলবে, এটা খুবই দুঃখজনক। বিচার ছাড়া কাউকে গুলি করে মেরে ফেলবে, এটা আগে কখনো হয়নি।

বিএন‌পির নেতাকর্মীদের না‌মে মিথ্যা মামলা ও নানা নির্যাতন চলছে অভিযোগ ক‌রে তি‌নি বলেন, ‘নতুন করে সাঁড়াশি অভিযানে ১৬ হাজার লোককে ধরেছে। এর মধ্যে চার হাজার বিএনপি নেতাকর্মী। তাদের (সরকার) প্রধান উদ্দেশ্য হলো বিএনপিকে ধ্বংস করা।’

বিএনপির বিগত আন্দোলন-সংগ্রাম গুম-খুনের শিকার নেতাকর্মীদের স্মরণ করে অশ্রুসিক্ত চো‌খে খা‌লেদা জিয়া ব‌লেন, ‘আসুন, আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করি, তারা যেখানেই আছে- যেন ভালো থাকে, সুস্থ থাকে।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা (গুম হওয়াদের স্বজনরা) আশা করছেন, তারা একদিন ফিরে আসবে, আমরাও সেই আশায় আছি। তারা ফিরে এসে যেমন তাদের মা-বাবা, ভাই-বোন, স্ত্রী, ছেলে-মেয়েদের আবার আদর করবে, ঠিক তেমনিভাবে আমাদের দলে ফিরে নেতাকর্মীদের সঙ্গে মিলে আমাদের আপন হয়ে থাকবে।’

অশ্রু‌সিক্ত চো‌খে বিএন‌পি নেত্রী বলেন, ‘সন্তান হারানোর ব্যথা আমি বুঝি। আপনারা দেখেছেন আমার সন্তান (আরাফাত রহমান কোকো) হারিয়েছি।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, শরিফুল আলম।

এ ছাড়া আরো ছিলেন- ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব আহসান, সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন, সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান, জয়দেব জয়, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) বিএনপির সভাপতি জহির উদ্দিন তুহিন, প্রাক্তন সভাপতি খন্দকার এনামুল হক এনাম ও সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন মানিক, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা মামুন খান, সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আমিরুজ্জামান খান শিমুল, গুম হওয়ার পর ফিরে আসা ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন প্রমুখ।

ইফতার শেষে আন্দোলনে ক্ষতিগ্রস্থ ৩৮টি পারিবারকে আর্থিক সহায়তা ও ঈদ উপহার তুলে দেন খালেদা জিয়া।

-রাইজিংবিডি

 

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like