রোহিঙ্গা শুমারি চলছে

DSC_0042নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজারটাইমসডটকম, ০৮ জুন : বাংলাদেশের বসবাসকারি অবৈধ রোহিঙ্গাদের সংখ্যা নির্ধারণে রোহিঙ্গা শুমারি চলছে। গত ২ জুন থেকে শুরু হওয়া এ শুমারি চলবে ১০ জুন পর্যন্ত। গত ফেব্রুয়ারি মাসে করা খানা তালিকার ভিত্তিতে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে এ শুমারি করা হচ্ছে।

দেশের ৬ টি জেলায় প্রাথমিকভাবে এ শুমারি শুরু করেছে পরিসংখ্যা ব্যুরো। জেলা সমুহ হল, কক্সবাজার, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, রঙ্গামাটি, চট্টগ্রাম ও পটুয়াখালি।

যার মধ্যে কক্সবাজারে মোট ৮৮৬ টি দল শুমারির তথ্য সংগ্রহের কাজ করছেন।

পরিসংখ্যা ব্যুরোর কক্সবাজার কার্যালয়ের সূত্র মতে, উখিয়া উপজেলায় ২১৫ টি, টেকনাফ উপজেলায় ৩২৫ টি, রামু উপজেলায় ৬৮ টি, চকরিয়া উপজেলায় ৫২ টি, পেকুয়া উপজেলায় ৪ টি, মহেশখালী উপজেলায় ২৯ টি, কুতুবদিয়া উপজেলায় ২ টি, কক্সবাজার সদর উপজেলায় ১৯১ টি দল তথ্য সংগ্রহে কাজ করছে।

পরিসংখ্যা ব্যুরোর তথ্য মতে, গত ফেব্রুয়ারি মাসে করা খানা তালিকায় দেশের ছয় জেলায় প্রায় পঞ্চাশ হাজার খানায় রোহিঙ্গা থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। এখন ওই সব খানা বা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ব্যক্তির তথ্য সংগ্রহ শুরু হয়েছে।

নানাভাবে বলা হয়ে থাকে, রোহিঙ্গারা পৃথিবীর সবচেয়ে নির্যাতিত জনগোষ্ঠী। নিজ দেশ মিয়ানমারে যাদের নাগরিকত্ব নেই। অস্বীকৃতি, জাতিগত দঙ্গা আর রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের শিকার, ২ থেকে ৫ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম আশ্রয় নিয়েছেন বাংলাদেশে। কিন্তু এসব রোহিঙ্গাদের সঠিক পরিসংখ্যা কেউ নিশ্চিত করতে পারে না।

যার প্রেক্ষিতে পরিসংখ্যা ব্যুরোর অধিনে গত ফেব্রুয়ারি মাসে তৈরী করা হয় খানা তালিকা। যে তালিকায় রোহিঙ্গা অবস্থানরত বাড়ি সমুহ শনাক্ত করা হয়। ওই শনাক্ত হওয়া বাড়িতে এখন তথ্য সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে।

রোহিঙ্গা শুমারি প্রকল্পের পরিসংখ্যা ব্যুরোর পরিচালক মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন জানান, শুমারির মাধ্যমে সঠিক তথ্য বেরিয়ে আসবে। শুমারিতে ছবিসহ প্রায় ৪৬ ধরনের তথ্য নেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে মিয়ানমারের ঠিকান, সেখান থেকে আসার কারণ এবং বাংলাদেশে অবস্থানের তথ্য গুরুত্বপূর্ণ। যাদের নাম শুমারিতে অন্তর্ভুক্ত হবে, তাদেকে ছবিযুক্ত পরিচয়পত্র দেয়া হবে। যা দিয়ে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা পাওয়ার সুযোগ তৈরি হবে।

তিনি আশা করছেন এই শুমারির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের বিষয়ে একটি নির্ভরযোগ্য তথ্য ভান্ডার তৈরি হবে।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like