ব্যস্ত সময় পার করছেন মুস্তাফিজ

2016_06_01_19_26_03_jDOENBwRJTA3Yl8a4MfDIffMblVBEV_original

ক্রীড়া ডেস্ক:  প্রায় দুই মাসব্যাপী আইপিএলের সফল মিশন। অভিষেক আসরে শিরোপায় চুমু খেয়েছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে। অনেকটা রাজকীয় ঢঙে দেশে ফিরেছেন বাংলাদেশের কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমান। বর্তমানে তিনি এখন অবস্থান করছেন গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরায়। টানা খেলার ধকল এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেননি। বিশ্রাম দরকার তার। তবে গ্রামে এসেও তা আর হচ্ছে কই। শুভেচ্ছা জানাতে আসছে অনেকেই। সব মিলিয়ে ব্যস্ত সময়ই পার করছেন বাংলাদেশের এই তরুণ পেসার।

মঙ্গলবার ঢাকা থেকে নভো এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে সন্ধ্যা ৭ টা ১৮ মিনিটে যশোর বিমান বন্দরে পৌঁছান তিনি। ছেলেকে নিতে আগেই বিমানবন্দরে পৌছে যান গর্বিত মুস্তাফিজের বাবা আলহাজ্ব আবুল কাশেম গাজী। সঙ্গে ছিলেন মুস্তাফিজের খালু আনিসুর রহমান ও বড় ভাই মাহফুজুর রহমান মিঠুসহ মুস্তাফিজের ঘনিষ্ঠ একঝাক বাল্যবন্ধু।

অন্যদিকে, বিমান বন্দরে পৌঁছানো মাত্রই পরিবারের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান খালু আনিসুর রহমান। পরে সেখানে সাংবাদিকদের সাথে কিছুটা সময় দিয়ে সাতক্ষীরার উদ্দেশ্যে রওনা করেন। রাত ৯টা ৪০ মিনিটে সাতক্ষীরায় পৌছান এই কাটার মাস্টার। শহরের কামালনগর এলাকায় খালু ব্যবসায়ী আনিসুর রহমানের বাড়িতে পৌঁছে কিছুটা সময় কাটানোর পর রওনা হন কালিগঞ্জের তেঁতুলিয়া গ্রামে।

রাত ১১টায় তার বাড়ীতে মায়ের কাছে পোঁছে যান মুস্তাফিজ। বাড়ীতে পৌঁছেই মা মাহমুদা বেগমকে জড়িয়ে ধরেন মুস্তাফিজ। সেখানেও অপেক্ষায় ছিলেন আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবসহ এলাকার শতশত মানুষ। ভাই-বোন আত্মীয়-স্বজনদের সাথে গল্প করে ভোর ৪টার দিকে ঘুমাতে যান তিনি।

বুধবার ভোর থেকেই বৃষ্টি ও প্রতিকূল আবহাওয়া উপেক্ষা করে বাড়ীতে ভিড় করতে থাকে মুস্তাফিজ ভক্তরা। শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানোর জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থীরা বাড়ীতে হাজির। বৃষ্টি উপেক্ষা করে অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে মুস্তাফিজকে শুভেচ্ছা জানাতে আসা কালিগঞ্জ উপজেলার উজিরপুর জনতা ব্যাংকের ব্যবস্থাপক শেখ শামীম রেজা বলেন, ‘মুস্তাফিজ আমাদের ব্যাংকের একজন সম্মানিত গ্রাহক। আমরা গর্বিত মুস্তাফিজকে পেয়ে।’

বাল্যবন্ধু আরিফুল ইসলাম আরিফ সকাল ৭টায় মুস্তাফিজকে শুভেচ্ছা ও খোশগল্প করার জন্য হাজির হন। তাছাড়া বন্ধু হাফিজ, যতিন্দ্র রয়েছেন মুস্তাফিজের বাড়ীতেই।

দু-দুরান্ত থেকে মোটর সাইকেল-বাইসাইকেল যোগে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা মিলে এসেছেন মুস্তাফিজকে শুভেচ্ছা জানাতে। এর মধ্যে মাহবুব বলেন, ‘আমরা অনেক দূর থেকে এসেছি মুস্তাফিজ ভাইয়ের সাথে দেখা করবো বলে কিন্তু এখনও ঘুমিয়ে আছে। ঘুম থেকে উঠলে শুভেচ্ছা জানিয়ে বাসায় ফিরবো।’ ক্লান্ত মুস্তাফিজ বেলা ১১টায় ঘুম থেকে উঠে সকলের সাথে স্বাক্ষাত করেন। মুস্তাফিজের স্বাক্ষাৎ পেয়ে তুষ্ট হৃদয়ে বাড়ি ফেরে সব ভক্তরা।

-বাংলামেইল২৪ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like