উদযাপনের কেন্দ্রে ছিলেন ড্যান্সার মুস্তাফিজ

2016_05_30_13_11_27_chkOfFeu1TOHeafp0RMLoyEksuS3v8_original

ক্রীড়া ডেস্ক:  আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এক বছর পূর্ণ হওয়ার আগেই আইপিএল খেলতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশের পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। প্রথম বিদেশী লিগে খেলতে গিয়েই ঝড় তুলেছেন। আর তার দলও হয়েছে চ্যাম্পিয়ন। ফাইনাল ম্যাচে রয়ল্যা চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে হারানোর পর মাঠে উদযাপনের কেন্দ্রে ছিলেন কাটার মাস্টার। মাঠে নেচেছেন তিনি। তাকে ঘিরে নাচ উপভোগ করলেন ওয়ার্নাররা।

রোববার বেঙ্গালুরুর এম চিন্নস্বামী স্টেডিয়ামে ম্যাচের জয় নিশ্চিত হওয়ার মুহূর্তে মাঠে ছিলেন মুস্তাফিজররা। যারা সাইডলাইনে বসেছিলেন। তারাও ভোঁ-দৌড় দিয়ে মাঠে নেমে যান। সবাই মিলে মাঠে গোল হয়ে যান। জয়ের প্রতীক স্টাম্প হাতে সবার মাঝে নাচেন সাতক্ষীরা সায়ানাইড।

নিলামে প্রায় বাংলাদেশি টাকায় এক কোটি ষাট লাখে মুস্তাফিজুরকে নিয়েছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এর চেয়ে বেশি অর্থে টানা বোলারও ছিল হায়দরাবাদে। তবে মুস্তাফিজকে ছাড়িয়ে যেতে পারেননি তারা। মুস্তাফিজ দেখিয়েছে তার কারিশমা, বিস্ময়।

শুরু থেকেই হায়দরাবাদের প্রতি ম্যাচেই ছিলেন মুস্তাফিজ তুরুপের তাস। দেখিয়েছেন তার নৈপূণ্য। তবে টানা ১৫ ম্যাচ খেলার পর দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ছিলেন না মুস্তাফিজ। ইনজুরির কারণে ছিলেন মাঠের বাইরে। তবে দল জিতে উঠে এসেছিল ফাইনালে।

ফাইনালে মুস্তাফিজ খেলতে পারবেন কি না, তা নিয়ে ছিল সংশয়। তবে সব শংকা উড়িয়ে দিয়ে মাঠে নামেন মুস্তাফিজ। ৩৯ রানে নেন একটি উইকেটও। দল চ্যাম্পিয়ন হয় ৮ রানে।

সব মিলিয়ে ১৬ ম্যাচে ১৭ উইকেট নিয়ে আইপিএল মিশন শেষ করলেন মুস্তাফিজ। অবস্থান পঞ্চম। সর্বোচ্চ ২৩ উইকেট মুস্তাফিজেরই সতীর্থ ভুবনেশ্বর কুমারের।

তবে একটি জায়গায় সবার উপরেই রয়েছেন মুস্তাফিজ। আর তা হলো বোলিংয়ে ইকোনমি রেট। পুরো টুর্নামেন্টে মুস্তাফিজ বল করেছেন ৬১ ওভার। মোট রান দিয়েছেন ৪২১। ইকোনমি রেট সবচেয়ে ভালো, ৬.৯০।

-বাংলামেইল২৪ডটকম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like