স্ত্রীকে যৌনপল্লীতে বিক্রির দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

LawSM20160412195409দেশ ডেস্ক : ভারতের যৌনপল্লীতে স্ত্রী আয়েশা খাতুনকে বিক্রির দায়ে মেছের আলী নামে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার(১৮ মে) দুপরে লালমনিরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের (জেলা ও দায়রা জজ আদালত) বিচারক মিঞা মোহাম্মদ আলী আকবার আজিজী এ রায় দেন।

লালমনিরহাট আদালত ও হাতীবান্ধা থানা সূত্রে জানা যায়, হাতীবান্ধা উপজেলার দোয়ানী এলাকার বেলাল হোসেনের মেয়ে আয়েশা খাতুনের বিয়ে হয় পাশের জেলা কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার অনন্তপুর এলাকার ইসমাইল হোসেনের ছেলে মেছের আলীর সঙ্গে। বিয়ের এক বছর না পেরুতেই ১৯৯৯ সালের ২৩ জুন আয়েশা খাতুনকে ফুলবাড়ী উপজেলার অনন্তপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতের শিলিগুড়ির একটি যৌনপল্লীতে বিক্রি করে দেন মেছের আলী। সেখানে সাড়ে তিন বছর থাকার পর আয়েশা কৌশলে বাংলাদেশে তার বাবার বাড়িতে পালিয়ে আসেন। এরপর ২০০৫ সালের ৬ এপ্রিল এ ঘটনায় নিজে বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় মামলা দায়ের করেন তিনি।

সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বুধবার দুপুরে বিচারক এ রায় দেন।

লালমনিরহাট জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট মো. আকমল হোসেন জানান, আয়েশার স্বামী মেছের আলী পলাতক আছেন। তাকে যেদিন গ্রেফতার করা হবে সেদিন থেকে এ রায় কার্যকর হবে।

-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like