চৌফলদন্ডীতে সবক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্য প্রার্থী আ. লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী আবুল কালাম

13006555_178480375878554_9002123974247912062_nনিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজারটাইমসডটকম, ১৬ এপ্রিল : জেলা শহরের অতি নিকটবর্তী ও অর্থনৈতিকভাবে সম্ভাবনাময় ইউনিয়ন কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌফলদন্ডী। ইউপি নির্বাচনে ভোটের জটিল অংক সঠিকভাবে না কষে যদি ‘নৌকা প্রতীকের প্রার্থী’ মনোনীত করা হয়, তাতে ভরাডুবি হওয়ার আশংকা করছেন সচেতন মহল।
তাই নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আসতে হলে প্রশাসন থেকে শুরু করে সমাজের সবক্ষেত্রে নেতৃত্বদানে যোগ্য ও জনবান্ধব নেতাকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দিতে হবে বলে অভিমত সচেতন মহল ও সাধারণ ভোটারদের।
চৌফলদন্ডীতে বিগত সময়ের ইউপি নির্বাচনের ফলাফল চিত্র পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, ইউপি নির্বাচনে এ ইউনিয়নে জয়-পরাজয়ের ক্ষেত্রে বরাবরই পূর্ব ও পশ্চিম এলাকার ভোটের সংখ্যা কম-বেশীর বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এছাড়া এ ইউনিয়নের ইতিপূর্বের নির্বাচনে জয়ী সব চেয়ারম্যান প্রার্থীই ছিলেন পশ্চিম চৌফলদন্ডী এলাকা থেকে। পশ্চিম চৌফলদন্ডী এলাকার কেন্দ্রগুলোতে ভোট সংখ্যা বরাবরই বেশী ছিল। এসব কেন্দ্রগুলোতে অধিকাংশ ভোট পেয়েছেন পশ্চিম এলাকার প্রার্থীরা। তবে এবারের নির্বাচনে অতীতের সেই রেকর্ড ভঙ্গ হয় কিনা তা-ই এখন কৌতুহলের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে সচেতন মহল ও সাধারণ ভোটারদের কাছে।
এক্ষেত্রে নির্বাচনের অতীতের সেই ভোটচিত্র পর্যালোচনা করে করে যদি আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া না হয়, তবে এনিয়ে ভরাডুবির আশংকা উড়িয়ে দেয়া যায় না বলে মনে সচেতন মহল।
তাছাড়া চৌফলদন্ডী ইউপি নির্বাচনে ভোটের যত জটিল অংকই কষা হোক না কেনো, এ ইউনিয়নে সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা পরিষদ প্রশাসক মোস্তাক আহমদ চৌধুরীর ব্যক্তিগত সমর্থনও প্রার্থীর জয়ের ক্ষেত্রে অন্যতম ভূমিকা রয়েছে।
চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের ৯ টি ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৯টি। এরমধ্যে ১ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রাখাইন পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট সংখ্যা ১৫৭৪টি, ২ নম্বর ওয়ার্ডের চৌফলদন্ডী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় কেন্দ্রে ১৭৭৮ টি, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম চৌফলদন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৪১৫ টি, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের হাকিমিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় অথবা ইসলামিয়া তালিমুল কোরআন মাদ্রাসা কেন্দ্রে ১৭৪৬ টি, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মাইজপাড়া নূরানী ও হাফেজখানা কেন্দ্রে ২৩৮৬ টি, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের চৌফলদন্ডী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৮৯৪ টি, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কালু ফকির পাড়া মরিয়ম বেগম মাদ্রাসা কেন্দ্রে ১৬৭৯ টি, ৮ নম্বর ওয়ার্ডের নতুন মহাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৫৪৭ টি এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডের খোনকারখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৩২০ টি ভোট রয়েছে।
এরমধ্যে ১ নম্বর থেকে ৫ নম্বর ওয়ার্ডকে পশ্চিম চৌফলদন্ডী এবং ৬ নম্বর থেকে ৯ নম্বর ওয়ার্ড পর্যন্ত এলাকাকে পূর্ব চৌফলদন্ডী হিসেবে পরিচিত।  সংখ্যার দিক দিয়ে পশ্চিম চৌফলদন্ডী এলাকায় ভোট বেশী ৩ হাজার ৪৫৯ টি।
আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন পশ্চিম চৌফলদন্ডী এলাকা থেকে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ওয়াজ করিম বাবুল ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ এবং পূর্ব চৌফলদন্ডী এলাকা থেকে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মনির।
তবে সচেতন মহলের অভিমত, ভোটের সংখ্যা ও অতীতের ভোটচিত্র পর্যালোচনা করে এবার বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে যদি পশ্চিম চৌফলদন্ডী এলাকা থেকে চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনীত করা হয়। এক্ষেত্রে প্রশাসন সহ সমাজের সবক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষেত্রে যোগ্যতর প্রার্থী হচ্ছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ। দীর্ঘদিন ধরে তিনি এলাকায় অবস্থান করে জনগণের সুখে-দু:খে পাশে ছিলেন। যদি থাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়, তবে নির্বাচনে জয়লাভ অনেকাংশে সম্ভাবনা বেশী রয়েছে। ইতিমধ্যে প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগের মাধ্যমে তিনি সাধারণ ভোটারদের মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছেন।
আবুল কালাম আজাদ ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগের সঙ্গে যুক্ত হয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথেই রয়েছেন। দীর্ঘ এক দশকেরও বেশী সময় সৌদি আরবে প্রবাস জীবন কাটানোর পর গত ৪/৫ বছর ধরে এলাকায় নিয়মিত অবস্থান করছেন। সেই থেকে তিনি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে এলাকাবাসীর মাঝে কাজ করছেন। কক্সবাজার শহরে রয়েছে তার নিজস্ব আবাসিক হোটেল সহ বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।
এব্যাপারে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন চেয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমি নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে ৩/৪ বছরের বেশী সময় ধরে এলাকাবাসীর মধ্যে কাজ করছি। ইতিমধ্যে এলাকাবাসীর সঙ্গে আমার একটা আত্মার সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আমি দলীয় মনোনয়ন পেলে নিশ্চিত বিজয়ী হতে পারবো।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like