মুস্তাফিজের দুর্দান্ত বোলিংয়ের পরও হায়দ্রাবাদের হার

IPL-Match-bg20160413001754

ক্রীড়া ডেস্ক:  চলমান ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চতুর্থ ম্যাচের মধ্যদিয়ে অভিষেক ঘটে বিশ্ব ক্রিকেটের বিস্ময় বাংলাদেশের পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের। তবে, সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে নিজের অভিষেক ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করেও দলের হার দেখতে হলো কাটার মাস্টার খ্যাত এই টাইগার পেসারকে। বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে স্বাগতিক রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ৪৫ রানে হেরেছে হায়দ্রাবাদ।

নিজের নামের প্রতি সুবিচার করেছেন টাইগার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। আস্থার প্রতিদান দিয়ে বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে দলের হয়ে সবচেয়ে কম ইকোনমি রেটে (৬.৫০) তুলে নিয়েছেন দুটি উইকেট। তাতেই হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন কাটার মাস্টার। ফিরিয়ে দিয়েছেন বেঙ্গালুরুর দুই ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যান এবিডি ভিলিয়ার্স ও শেন ওয়াটসনকে।

আগে ব্যাট করা বেঙ্গালুরু নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২২৭ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায়। জবাবে, ৬ উইকেট হারানো হায়দ্রাবাদের ইনিংস থেমে যায় ১৮২ রানে।

বেঙ্গালুরুর হয়ে সর্বোচ্চ ৮২ রান করেন ভিলিয়ার্স। মুস্তাফিজের বলে সাজঘরে ফেরার আগে প্রোটিয়া এই তারকা ৪২ বলে ৭টি চার আর ৬টি ছক্কায় তার ইনিংসটি সাজান। দলপতি বিরাট কোহলিকে সঙ্গে নিয়ে ১৫৭ রানের জুটিও গড়েন ভিলিয়ার্স।

ওপেনিংয়ে নামা কোহলি ৫১ বলে ৭টি চার আর তিনটি ছক্কায় করেন ৭৫ রান। আরেক ওপেনার ক্রিস গেইল ১ রান করেই বিদায় নেন। কোহলি আর গেইলকে বোল্ড করে ফিরিয়ে দেন ভুবনেশ্বর কুমার।

শেন ওয়াটসন মুস্তাফিজের দ্বিতীয় শিকারে ফেরার আগে ৮ বলে তিন ছক্কায় খেলেন ১৯ রানের ইনিংস। মাত্র ১০ বলে ৫টি বাউন্ডারির সঙ্গে দুটি ওভার বাউন্ডারিতে ৩৫ রান করে অপরাজিত থাকেন সরফরাজ খান।

হায়দ্রাবাদের হয়ে এক মুস্তাফিজ ছাড়া আর সব বোলারই ছিলেন ব্যর্থ। ভুবনেশ্বর দুটি উইকেট পেলেও ৪ ওভারে খরচ করেন ৫৫ রান। আশিষ নেহারার ২.১ ওভার থেকে বেঙ্গালুরু তুলে নেয় ২১ রান। ৪ ওভার করে বল করে হেনরিকস ৪১ আর কার্ন শর্মা ৫৭ রান খরচ করেন। আশিষ রেড্ডির ১.৫ ওভার থেকে খরচ হয় আরও ২৫ রান। তবে, মুস্তাফিজ অভিষেক ম্যাচেই চমক দেখিয়ে ৪ ওভারে মাত্র ২৬ রানের বিনিময়ে দুটি উইকেট তুলে নেন।

২২৮ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে হায়দ্রাবাদের ওপেনার শিখর ধাওয়ান ৮ রান করে বিদায় নেন। আরেক ওপেনার ও দলপতি ডেভিড ওয়ার্নার ব্যাটে ঝড় তুলে ২৫ বলে ৪টি চার আর ৫টি ছক্কায় করেন ৫৮ রান। তিন নম্বরে নামা হেনরিকস ২৩ বলে ১৯ রান করেন। রানের খাতা খোলার আগেই ফেরেন নোমান ওঝা।

দীপক হুদা ৬ রান করে বিদায় নিলেও দারুণ ব্যাট করতে থাকেন রেড্ডি। ওয়াটসনের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ১৮ বলে দুটি চার আর তিনটি ছক্কায় তিনি ৩২ রানের ইনিংস খেলেন। ইয়ন মরগান ১৮ বলে ২২ আর কার্ন শর্মা ১৭ বলে ২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন।

নির্ধারিত ২০ ওভারে হায়দ্রাবাদের ইনিংস থামে ১৮২ রানের মাথায়।

-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like