বৈশাখের উৎসবে বিধিনিষেধ মধ্যযুগীয় চিন্তা

2016_04_12_18_05_37_qZrXfH9reejL4iQG7uBqTEM4JXsM9c_original

দেশ ডেস্ক : পহেলা বৈশাখের উৎসবে সরকারের বিধিনিষেধ আরোপ মধ্যযুগীয় চিন্তার প্রতিফলন বলে মন্তব্য করেছেন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল। একই সঙ্গে উন্মুক্ত স্থানে উৎসব করার ক্ষেত্রে প্রশাসন নির্দেশনা না মানারও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে পহেলা বৈশাখ ১৪২৩ উদযাপন নিয়ে নারী নিরাপত্তা জোটের সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন সুলতানা কামাল। তিনি এ সংগঠনের আহ্বায়ক।

পহেলা বৈশাখে বিকেল ৫টার পর উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান করা যাবে না প্রশাসনের এ ধরনের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা অবশ্যই সারাক্ষণ, সর্বক্ষণ আমাদের পহেলা বৈশাখের আচার অনুষ্ঠান উৎসব চালিয়ে যাব এবং সরকার আইনগত ও সাংবিধানিকভাবে নিরাপত্তা দিতে বাধ্য থাকবে।’

‘সংবিধানের কোথাও লেখা নেই আমরা নিরাপত্তা দিতে পারব না।’ যোগ করেন তিনি।

সুলতানা কামাল বলেন, ‘রাষ্ট্রে নারীর প্রতি সুরক্ষা দেয়ার যে অঙ্গীকার রয়েছে তা না করে একটি মহল যারা উৎসবে আসে তাদের দোষ ধরে সার্বজনীন পহেলা বৈশাখের যে উৎসব মনোভাব এটা গুরুত্বহীন করে দিচ্ছে।’

এসময় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘এ বছর পহেলা বৈশাখ উদযাপনের বিকাল পাঁচটার মধ্যে সকলকে ঘরে ফিরে যেতে হবে এটা মধ্যযুগীয় চিন্তার প্রতিফলন।’

তিনি বলেন, ‘পোশাক-আশাকে নারীর সত্তা যাতে বিকশিত না হয় সরকারের এই সিদ্ধান্ত এরই প্রতিফলন। এজন্যই নারীর নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকার নিবে না।’

সুলতানা কামাল অভিযোগ করেন, এ দেশটায় যাতে কোনো ধরনের সর্বজনীন উৎসব করা না যায়, সে প্রক্রিয়া চলছে। অথচ সংবিধানে ধর্ম নিরপেক্ষতা, সর্বজনীনতা রয়েছে। আসলে সব ধরনের উৎসব বন্ধ করার একটা প্রক্রিয়া চালানো হচ্ছে।

সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সুলতানা কামাল বলেন, ‘রাষ্ট্র কিন্তু অঙ্গীকারবদ্ধ যে, তারা ২৪ ঘণ্টাই নারী-পুরুষের নিরাপত্তা দিবে। সাংবিধানিকভাবে বলা হয়েছে, কোনো পাবলিক প্লেসে নারী গেলে তাকে নিরাপত্তা দিবে সরকার। সরকার নিরাপত্তা দিতে পারবে না এমন কথা কোথাও লেখা নেই।’

কিছু দুর্বৃত্ত ভয় দেখিয়েছে বলে সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন সুলতানা কামাল। তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে দুঃখের বিষয় এই নিষেধাজ্ঞা এমন এক সরকার দিয়েছে যারা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি, ধর্মনিরপেক্ষতা ও গণতান্ত্রিক দাবি করে উৎসব পালনের অঙ্গীকার করে ক্ষমতায় এসেছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাকশন এইড এর নির্বাহী পরিচালক ফারাহ কবির বলেন, উৎসবের রেশ শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা থাকবো। এটা আমাদের মৌলিক অধিকার। এটাকে খর্ব হতে দিবেন না।

এসময় আরো বক্তব্য রাখেন, শ্রমিক নেতা ওযাজেদুল ইসলাম খান, এইড সার্ভাইভার ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সেলিনা আহম্মেদ, লেখক জাহানারা নুরী।

-বাংলামেইল২৪

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like