চট্টগ্রামের ষোল থানায় সিসি ক্যামেরা বসানোর ঘোষণা

সোমবার বিকালে নগর পুলিশ সদরদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় তিনি একথা বলেন।

ইকবাল বাহার বলেন, “রাস্তা বা অন্য স্থাপনার আগে আমি বিভিন্ন থানায় সিসি ক্যামেরা লাগব। থানার ভেতরে ও বাইরে কী হচ্ছে তা যেন আমি অফিসে বসেই দেখতে পারি।”

থানায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হলে দালালদের দৌরাত্ম্য কমবে বলেও মনে করেন তিনি।

সদ্য যোগদানকারী সিএমপি কমিশনার ইকবাল বলেন, “মানুষ বিপদে পড়লে আমাদের কাছে আসে। প্রতিটি পুলিশ অফিসার যেন বিপদগ্রস্ত মানুষের আশ্রয়দাতা হয়, সে বিষয়ে আমি সবাইকে নির্দেশনা দিয়েছি।”

পুলিশের কাছে মানুষের প্রত্যাশা বেশি মন্তব্য করে তিনি বলেন, “আমি জনগণকে সাথে নিয়ে কাজ করতে চাই। বন্দর নগরী চট্টগ্রামের ৬০ লাখ মানুষের নিরাপত্তার নিশ্চিত করতে আমরা তৎপর।”

জননিরাপত্তাকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করার অঙ্গীকার করে কমিশনার ইকবাল বলেন, “জনবান্ধব পুলিশিং আমার অঙ্গীকার। জনগণের বিপদে বন্ধু হিসেবে থাকতে এবং জনগণের আস্থা ও মনে ঠাঁই করে নিতে চাই।”

বাহিনীর সদস্যদের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, “ভালো-মন্দ দুটি পক্ষ সব জায়গায় আছে। তেমন পুলিশেও আছে। যদি কোনো ব্যর্থতা থাকে সেটা পুলিশের গুটিকয়েক সদ্যস্যের, পুরো বাহনীর নয়।”

অভ্যন্তরীণ শৃঙ্খলার ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে থেকে কোন পুলিশ সদস্য ‘বেআইনী’ কাজে জড়ালে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও হুঁশিয়ারি দেন নতুন কমিশনার।

মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য্য, অতিরিক্ত কমিশনার মাসুদুল হাসান, উপ-কমিশনার (গোয়েন্দা) মোক্তার আহমেদ ও উপ-কমিশনার (বিশেষ শাখা) মোয়াজ্জেম হোসেন ভূঁইয়া।

-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like