অলিম্পিকস আয়োজনে রিও কি প্রস্তুত?

160303030210_olympic_stadium_2016_640x360_getty_nocredit

ক্রীড়া ডেস্ক: ব্রাজিলের রিওতে অলিম্পিকসের মোটে চার মাস বাকি।

কিন্তু এই শহর এত বড় আয়োজনের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত কিনা সেনিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে।

অনেক ভেন্যু তৈরির কাজ এখনো শেষ হয়নি।

প্রেসিডেন্ট দিলমা রুসেফ রয়েছেন রাজনৈতিক সংকটে।

আর সেই সাথে রয়েছে যিকা সংক্রমণ আতংক।

সব মিলিয়ে অলিম্পিকসের জন্য কতটা প্রস্তুত রিও ডি জেনিরো?

বিবিসির আলিম মকবুল তার খোজ নিতে গিয়ে দেখলেন পুরো রিও ডি জেনিরো জুড়ে সময়ের সাথে পাল্লা দেয়ার এক মরিয়া চেষ্টা।

আগস্টের শুরুতেই অলিম্পিকস কিন্তু অনেকগুলো ভেন্যু শুধু বাইরে থেকে দেখতে প্রস্তুত।

প্রতিযোগিতার জন্য ভেতরে এখনো অনেককিছুই প্রস্তুত নয়।

এখনো চলছে কয়েকটি ভেন্যুতে যাওয়ার সংযোগ সড়ক তৈরির কাজ।

রিও অলিম্পিক আয়োজক কমিটি চেয়েছিল অসাধারণ এক অলিম্পিক পার্ক দিয়ে সবাইকে চমকে দেবে।

আলিম মকবুল বলছেন, তাতেও কোন চমক চোখে পড়ছে না।

সবকিছু ছাপিয়ে দেশটিতে চলছে রাজনৈতিক বিক্ষোভ।

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট দিলমা রুসেফ অলিম্পিক উদ্বোধন করতে পারবেন কিনা সেটি নিশ্চিত নয় কারণ তিনি রয়েছেন অভিশংসনের সম্ভাবনার মুখে।

তার সরকারের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ দল কোয়ালিশন থেকে বেরিয়ে গেছে।

রিও অলিম্পিক কমিটির প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সহ আয়োজন কমিটির বেশ কিছু কর্মকর্তা পদত্যাগ করেছেন।

রিও অলিম্পিক কমিটির মারিও আন্দ্রাদা বলছেন, “অলিম্পিকের ইতিহাসে কোন আয়োজক দেশ এতটা সংকটের মধ্যে দিয়ে যায়নি।কিন্তু তার মানে এই নয় যে অলিম্পিকস আয়োজনের ওপর এর কোন নেতিবাচক প্রভাব পড়বে অথবা খেলার আয়োজনে আমরা কোন আপস করবো”

অন্যদিকে রিও জুড়ে চলছে মশার সাথে যুদ্ধ। মশা বাহিত যিকা ভাইরাসে ব্রাজিল এক দুর্যোগের মুখে।

হাজার হাজার মানুষ যিকায় আক্রান্ত হয়েছেন।

গর্ভবতীদের ব্রাজিলে যেতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

অলিম্পিকস দেখতে আসা দর্শকদের কি হবে তারাও যিকা আক্রান্ত হয়ে পড়বে কিনা সেনিয়েও রয়েছে শঙ্কা।

ফাবিয়ানা অলিভিয়েরা বেইজিং ও লন্ডনে ভলিবলে দুবার গোল্ড মেডেল জিতেছেন।

এখন তার নিজের দেশেই আসছে কিন্তু আয়োজন জুড়ে এত সংকট তার মনে উত্তেজনার বদলে জুড়ে দিয়েছে উদ্বেগ।

তিনি বলছেন, “আমার দু:খ লাগছে এটা ভেবে যে সবাই এই আয়োজনের ব্যাপারে মনোযোগী নয়। এটিকে সফল করে তোলা দিকে তাদের নজর নেই। আমার দেশ কঠিন সময় পার করছে সেজন্যেও আমার দু:খ হচ্ছে। কিন্তু আমার দেশের মানুষের যে সংগ্রামী স্পৃহা, আশাকরি এবারের অলিম্পিকস মাধ্যমে তার প্রকাশ পাবে”

রিও অলিম্পিকস টিকেট বিক্রি অন্যবারের মতো এখনো তেমন একটা হয়নি।

অনেকেই নিরুৎসাহিত হচ্ছেন সেখানে যেতে।

অলিম্পিক আয়োজক শহর সবসময়ই এক ধরনের বিশেষ সম্মান পায়।

কিন্তু রিও সেই সম্মান কতটা রাখতে পারবে সেনিয়ে এখন রয়েছে বিশেষ উদ্বেগ।

-বিবিসি

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like