তনু হত্যা: হরতালের ডাক বাম ছাত্র সংগঠনগুলোর

প্রগতিশীল ছাত্রজোট এবং সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিছিল নিয়ে সচিবালয়ের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে হাই কোর্টের মোড়ে পুলিশের বাধা পায়।

সেখানে সমাবেশে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমন্বয়ক আশরাফুল আলম সোহেল বলেন, “আগামী ২৪ এপ্রিলের মধ্যে যদি তনু হত্যার জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে সরকার ব্যর্থ হয়, তাহলে আগামী ২৫ এপ্রিল অর্ধদিবস হরতাল কর্মসূচি পালন করবে প্রগতিশীল ছাত্র জোট এবং সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য।”

কুমিল্লা সেনানিবাসের মধ্যে ভিক্টোরিয়া কলেজের এই ছাত্রী নিহতের ১৭ দিনেও কোনো খুনি শনাক্ত না হওয়া এবং ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলামত না পাওয়ায় এর সুষ্ঠু তদন্ত নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে বাম ছাত্র সংগঠনগুলো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ে যায়।

তনুর খুনি গ্রেপ্তারের দাবিতে বাম ছাত্র সংগঠনগুলো ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে এর আগে ছাত্র ধর্মঘটও ডেকেছিল।

দুপুর ১২টার দিকে ডাকসু ভবনের সামনে সমাবেশের পর মিছিল নিয়ে রওনা হয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট এবং সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্যেভুক্ত সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মীরা।

দোয়েল চত্বর পুলিশ ব্যারিকেড দিলে তা ভেঙে এগিয়ে যায় বিক্ষোভকারীরা। হাই কোর্টের মোড়ে পুলিশ ফের বাধা দিলে সেখানে সমাবেশ করে কর্মসূচি শেষ করে তারা।

সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জি এম জিলানী শুভ বলেন, “তনু হত্যার ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়া তৎপরতা শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে এই হত্যাকাণ্ডের ময়নাতদন্তে দুই ধরনের তথ্য পরিবেশিত হয়েছে।

“খুনিদের গ্রেপ্তার না করে সরকার নতুন নতুন তথ্য পরিবেশন করে একদিকে এই ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার পাঁয়তারা করেছে। অন্যদিকে তনুর ভাইয়ের বন্ধুকে গুম করা হয়েছে এবং তনুর পরিবারকে নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে।”

নাট্যকর্মী তনু হত্যাকাণ্ডের তদন্ত নিয়ে বিভিন্ন মহলে অসন্তোষের মধ্যে বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকের পর কমিটির সভাপতি আমির হোসেন আমু সাংবাদিকদের বলেছেন, “নিশ্চিত থাকতে পারেন, সুষ্ঠুভাবে তদন্ত হবে।”

অবিলম্বে তনুর খুনিদের চিহ্নিত ও গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমন্বয়ক আশরাফুল বলেন, “ইতোমধ্যে ঘটে যাওয়া খুন-ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কোনো সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার হয়নি। বরং সরকার খুনি-ধর্ষকদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে বিভিন্ন বক্তব্য-বিবৃতির মধ্য দিয়ে।”

কর্মসূচিতে সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্যের সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক সালমান রহমান, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের একাংশের সভাপতি ইমরান হাবিব রুমন, অন্য অংশের সভাপতি নাঈমা খালেদ মনিকা, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির এবং ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি লিটন নন্দী নেতৃত্ব দেন।

-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

1 Response

  1. তুন হত্যা বিচার চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like