এ কেমন কমিশন, লড়েও না, চড়েও না: সুরঞ্জিত

vccc

ফাইল ফটো

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের বিরুদ্ধে ‘ক্ষমতা প্রয়োগে নিষ্ক্রিয়তার’ অভিযোগ করেছেন সাবেক এই মন্ত্রী, যে অভিযোগ আগে থেকেই করে আসছিল বিএনপি।

শুক্রবার ঢাকেশ্বরী মন্দিরে এক অনুষ্ঠানে সুরঞ্জিত বলেন, “ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনটা হচ্ছে। এখানে ৮-১০ জন মানুষ মারা গেছে। তখন তো আর মুখ বন্ধ করে থাকতে পারি না।

“এই নির্বাচনে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কেও আত্মাহুতি দিতে হয়েছে। এদেরকে আমাদের নির্বাচন কমিশন রক্ষা করতে পারেনি।”

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ধাপের ৬৩৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সহিংতায় এক শিশুসহ আটজন নিহত হয়েছেন। এর আগে ২২ মার্চ প্রথম ধাপের ভোটে সহিংসতায় প্রাণ হারিয়েছিলেন ১১ জন। এর বাইরে ভোটের প্রচার ঘিরে সহিংসতায়ও বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছেন।

এই প্রাণহানি রুখতে নির্বাচন কমিশন ভূমিকা রাখতে পারছে না বলে মনে করেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত।

তার মতে, বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন বিশ্বের ‘সবচেয়ে শক্তিধর’ নির্বাচন কমিশন।

“উনি (প্রধান নির্বাচন কমিশনার) ইচ্ছে করলে নির্বাচন বাতিলও করতে পারেন, আবার বহালও রাখতে পারেন। যে কারও চাকরি খেতে পারেন।

“কিন্তু এ কেমন কমিশন? লড়েও না, চড়েও না। আগায়ও না, পিছায়ও না।”

এই অবস্থান থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়ে রকিবউদ্দীনের উদ্দেশে সুরঞ্জিত বলেন, “একটা কিছু ক’ গোলাপি, একটা কিছু ক’। আপনাদের তো কিছু বলতে হবে।”

‘ওই ফুটবল আর পাবেন না’

রাজনৈতিক মতভেদ দূর করতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ক্ষমতাসীনদের প্রতি সংলাপের যে আহ্বান রেখেছেন তা নিয়েও কথা বলেছেন সুরঞ্জিত।

তিনি বলেন, “খালেদা জিয়া প্রশ্ন তুলেছেন যে বল এখন শেখ হাসিনার কোর্টে। বল নাকি আমাদের কোর্টে, কোন বল? আপনি তো খেলোয়াড় বড়। কত জায়গায় খেলেন। নওয়াজ শরীফের কথায় কখনো খেলেন, কখনো ক্রিকেট, কখনো হকি, কখনো ভলিবল, কখনো ফুটবল; কোনটা? এখন তো ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন চলছে। তাহলে আপনি কোনটা খেলবেন?”

খালেদাকে উদ্দেশ করে সুরঞ্জিত বলেন, “আপনার ফুটবলটা হারিয়েছিলেন কোথায়? আর পাইছিলেন কোথায়? ফুটবল পাইছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে পঁচাত্তরের ১৫ অগাস্ট হত্যা করার মাধ্যমে। জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করে দেশের মুক্তিযুদ্ধকে বিকৃত করে।

“ওই ফুটবল যদি খুঁজেন, তাহলে আপনি আর পাবেন না। এটা বলতে পারি, ওই ফুটবল আপনি ইহজীবনেও পাবেন না, পাবেন না, পাবেন না। ওটা যে চলে গেছে, হারিয়ে গেছে, হারিয়ে গেছে। ওটা তো আপনি বুঝতেই পারতেছেন।

“আর যদি ওই ফুটবল বলতে আপনি নির্বাচন চান, নির্বাচন তো হতেই পারে। আমরা তো নির্বাচনে অবিশ্বাসী না। আমরা সংবিধানে বিশ্বাসী, সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে নিয়মতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

“ওই নির্বাচনে আপনি অবশ্যই অংশগ্রহণ করবেন। আপনাকে বাদ দেওয়া হবে না। তবে একটা কথা বলে দেই, আপনি যে ভুলটি একবার করেছেন, নওয়াজ শরীফের কথায়, আইএসের কথায়, তা আর করবেন না।”

‘আপনি দেখাইয়া দিলেন’

আদালত অবমাননার দায়ে দুই মন্ত্রীকে সাজা দিয়ে প্রধান বিচারপতি তার ক্ষমতা দেখিয়েছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।

তিনি বলেন, “দুই মন্ত্রী মন্তব্য করেছেন আর উনি বলেছেন দেখাইবেন। উনি দেখাইয়েও দিছেন। দুই মন্ত্রী বলছে মাফ চাই, মাফ করে দাও। আপনি প্রধান বিচারপতি, আপনার তাদেরকে মাফ করে দেওয়া উচিত ছিল।

“তা না করে আপনি দেখাইয়া দিছেন। এতে ক্ষতিটা কার হল?”

যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেম আলীর আপিলের রায় সামনে রেখে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা নিয়ে ‘অবমাননাকর’ মন্তব্যের জন্য খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে সর্বোচ্চ আদালত।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি কাজল দেবনাথের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার বক্তব্য দেন।

-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like