ভারমুক্ত-কারামুক্ত ফখরুল খালেদার বাড়িতে

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে কয়েক ঘণ্টা থেকে বুধবার সন্ধ্যায় মুক্তি পাওয়ার পর গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের বাড়ি ফিরোজায় যান বিএনপির নতু মহাসচিব।

ফখরুল দলীয় চেয়ারপাসনের হাতে ফুল দিয়ে তাকে মহাসচিব করার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। নতুন জ্যেষ্ঠ যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান খালেদাকে।

বিএনপি নেতা আবদুল্লাহ আল নোমান, গোলাম আকবর খন্দকার, আবদুস সালাম, আসাদুজ্জামান রিপন, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এরপর ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, “আমার উপর চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান যে গুরু দায়িত্ব অর্পণ করেছেন, তা যেন যথাযথভাবে পালন করতে পারি।

“আমাদের সামনে আজকে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে গণতন্ত্র এবং জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে আনা। বিএনপি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে আমরা সেই লক্ষ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে কাজ করে যাব।”

এরপর ফখরুল গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে যান। সেখানে নেতা-কর্মীরা তাকে করতালি দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়।

পাঁচ বছর ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর পূর্ণ দায়িত্ব পেলেন ৬৮ বছর বয়সী ফখরুল।

কাউন্সিলের ১১ দিন পর বুধবার সকালে মহাসচিব পদের ঘোষণা আসার পর নাশকতার তিনটি মামলায় আত্মসমর্পণের জন্য ঢাকার আদালতে গিয়েছিলেন ফখরুল।

আদালত দুটি মামলায় ফখরুলের আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন। ওই আবেদন পুনর্বিবেচনার জন্য আইনজীবীদের আবেদনে একই বিচারক চার ঘণ্টা পর জামিন মঞ্জুর করেন। এরপর কারাগার থেকে ছাড়া পান তিনি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like