ধর্ষকের গোপনাঙ্গ কেটে দিলেন গৃহবধূ!

নিউজ ডেস্ক: সারাদেশে যখন ধর্ষকের বিচার দাবিতে উত্তাল তখন এক গৃহবধূ নিজের হাতে তুলে নিয়েছেন আইন। ধর্ষণ করতে আসা ব্যক্তির লিঙ্গ কেটে দিয়েছেন। মারাত্মক আহত অবস্থায় ওই ব্যক্তিকে ভর্তি করানো হয়েছে হাসপাতালে। শনিবার (২৬ মার্চ) গভীর রাতে কাঁঠালিয়া উপজেলার আমরিবুনিয়া গ্রামে ব্যতিক্রমী এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার শিকার ব্যক্তির নাম আব্দুল মন্নান। তিনি থানা পুলিশের অন্যতম দালাল হিসেবে চিহ্নিত।

অভিযোগ আছে, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) থেকে শুরু করে বেশিরভাগ দারোগার উৎকোচ আদান প্রদানের প্রধান মাধ্যম তিনি। পুলিশের সঙ্গে বিতর্কিত সম্পর্কের কারণে মামলার বাদী আর বিবাদীরা তাকে নিয়ে সব সময়েই ভয়ে তটস্থ থাকেন।

দুই সন্তানের জননী নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ ও এলাকাবাসী জানায়, বহুদিন ধরে ওই গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন মন্নান। প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় গৃহবধূর স্বামীর বিরুদ্ধে চুরির মিথ্যে অভিযোগ দিয়ে তাকে বাড়িছাড়া করে।

এক পর্যায়ে গত ২৬ মার্চ রাতে গৃহবধূর বাড়ির দরজায় গিয়ে নক করেন মন্নান। দরজা খুলেই মন্নানকে দেখতে পান গৃহবধূ। এরপর কিছু বুঝে ওঠাই আগেই গৃহবধূর মুখ চেপে ধরে। ভয়ভীতি দেখিয়ে ঘরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এসময় মন্নানের হাত থেকে আত্মরক্ষার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে কৌশলে ঘরে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে মন্নানের গোপনাঙ্গে আঘাত করেন।

দুইজনেরই ডাক চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসে। মন্নানকে ধরে তারা রক্তাক্ত অবস্থাতেই গণধোলাই দেয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মাঈনুল হোসেন জানান, বিষয়টি চেয়ারম্যানকে অবহিত করে গুরুতর আহত মন্নানকে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পাঠিয়ে দিয়েছি।

হাসপাতাল সূত্রমতে, মন্নানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রোববার (২৭ মার্চ) দুপুরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মন্নান এলাকায় রেন্ট এ কার মন্নান নামে পরিচিত। দীর্ঘদিন ধরে কাঁঠালিয়া থানা পুলিশের অন্যতম দালাল হিসেবে কাজ করে আসছেন। ওসি থেকে শুরু করে বেশিরভাগ এসআইয়ের ঘুষ লেনদেনের প্রধান মাধ্যম হিসেবে কাজ করে আসছেন মন্নান। পুলিশের সঙ্গে দহরম মহরম থাকায় তাকে দেখে সবাই ভয় পায়। হয়রানির ভয়ে মামলার সাধারণ বাদী ও বিবাদীরা সব সময় তটস্থ থাকে। শুধু তাই নয়, নারী ঘটিত অনৈতিক কাজে কোনো কোনো পুলিশ সদস্যকে সহযোগিতা করার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

কাঁঠালিয়া থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মালেক জানান, এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ েআসেনি।

-বাংলামেইল২৪

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like