তারেকের বক্তব্য প্রচারে আইনি লড়াইয়ে যাচ্ছে বিএনপি

রাজনীতি ডেস্ক : ইন্টারপোলের রেড অ্যালার্ট প্রত্যাহার হওয়ায় গণমাধ্যমে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বক্তব্য প্রচারে এবার আইনি লড়াইয়ে যাচ্ছে দলটি। রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ তথ্য জানান।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারেক রহমানের বক্তব্য গণমাধ্যমে প্রকাশের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা থাকায় আপনারা (গণমাধ্যম) তার বক্তব্য প্রচার করতে পারছেন না। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তবে বিভিন্ন কারণে সেটি বেশিদূর অগ্রসর হয়নি। কিন্তু এবার ইন্টারপোলের সেই রেড অ্যালার্ট প্রত্যাহারের পর আমরা নতুন করে এ বিষয়গুলো নিয়ে আইনি লড়াইয়ে যাবো।’

এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘যে কারণগুলোর ওপর ভিত্তি করে কোর্ট থেকে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল, সেটি ছিল এই বিষয়গুলোর ওপর ভিত্তি করেই।’

তারেকের রেড অ্যালার্ট প্রসঙ্গে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব জানান, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলায় আওয়ামী লীগ দলীয় সমর্থক এবং এমপি পদপ্রার্থী সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা আব্দুল কাহার আকন্দকে দিয়ে পুনঃতদন্ত করিয়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তারেক রহমানকে মামলার আসামির তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়। এরপর বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে তারেক রহমানকে পলাতক দেখিয়ে তার সম্পর্কে বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে ইন্টারপোলে মিথ্যা ও বিভ্রান্তকর তথ্য সরবরাহ করা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ইন্টারপোল ২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে রেড নোটিশ জারি করে। রেড নোটিশের যৌক্তিকতা নিয়ে তারেক রহমানের পক্ষে লন্ডনিয়াম সলিসিটর্স ইন্টারপোল হেড কোয়ার্টার্সে আপিল করে।

তিনি আরো জানান, ইন্টারপোল পরে তাদের নিজস্ব পদ্ধতিতে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকারের দেয়া তথ্য যাচাই করে এর সত্যতা না পাওয়ায় এবং বিষয়টি তাদের আর্টিকেল ৩ এর ধারায় রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত প্রমাণিত হওয়ায় রেড নোটিশ প্রত্যাহার করে নিয়েছে। একইসঙ্গে ইন্টারপোল হেড কোয়ার্টার্স তারেক রহমান সম্পর্কে বাংলাদেশ সরকারের দেয়া সকল তথ্য বাতিল করে দিয়েছে। গত ১৪ মার্চ কমিশন ফর দ্য কন্ট্রোল অব ইন্টারপোলস ফাইলসের পক্ষ থেকে লন্ডনের লিগ্যাল ফার্ম লন্ডনিয়াম সলিসিটর্স ফার্মকে লিখিতভাবে ইন্টারপোলের এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, আব্দুল্লাহ আল নোমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, সহ-দপ্তর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি, শামীমুর রহমান শামীম, আসাদুল করিম শাহীন প্রমুখ।

-বাংলামেইল২৪

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like