জাতীয় স্মৃতিসৌধে খালেদার শ্রদ্ধা

স্বাধীনতা দিবসে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সাভারে স্মৃতিসৌধের বেদিতে দলীয় নেতাদের নিয়ে ফুল দেন তিনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মাহবুবুর রহমান, আবদুল মঈন খান, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, এ জেড এম জাহিদ হোসেন এসময় উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির সঙ্গে যুবদল, ছাত্রদল, মহিলা দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলসহ সহযোগী বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকেও স্মৃতিসৌধে ফুল দেওয়া হয়।

শ্রদ্ধা নিবেদনের পরে মওদুদ সাংবাদিকদের বলেন, “বিএনপি মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী একটি দল। আজকে আমাদের স্বাধীনতার ৪৫ বছর হতে চলেছে। এখন সময় এসেছে নতুন সমাজ ও নতুন দেশ গড়ার জন্য বেগম জিয়া যে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছেন, সেই লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে।”

খন্দকার মোশাররফ বলেন, “মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল গণতান্ত্রিক ও বৈষম্যহীন দেশ গড়া। গণতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণের যে কাজ আমরা করে যাচ্ছি, স্বাধীনতা দিবস সেই কাজকে আরও বেগবান করবে।”

স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে এসে খালেদা জিয়া দলের নেতাদের নিয়ে শেরে বাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

কবর প্রাঙ্গণে জাতীয়তাবাদী উলামা দলের মিলাদ মাহফিলেও অংশ নেন জিয়ার স্ত্রী খালেদা।

বিএনপি নেতা ইনাম আহমেদ চৌধুরী, শাহজাহান ওমর, শামসুজ্জামান দুদু, আমানউল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, খায়রুল কবীর খোকন, মাসুদ আহমেদ তালুকদারও এই কর্মসূচিতে ছিলেন।

স্বাধীনতা দিবসে বিকালে নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে বিএনপি শোভাযাত্রা বের করবে।

গত বছরের ৩ জানুয়ারি থেকে টানা তিন মাস অবরোধ-হরতালের কর্মসূচি দিয়ে গুলশানের কার্যালয়ে অবস্থানের সময় খালেদা সেবার জাতীয় স্মৃতিসৌধ যাননি। তার পক্ষে দলের উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরীর নেতৃত্বে ফুল দেওয়া হয়েছিল।

-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like