চট্টগ্রামের সদরঘাট থানার ওসি মাইনুলকে প্রত্যাহার

এ ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রাথমিক প্রতিবেদনের পর সদরঘাট থানার ওসি মাইনুল ইসলাম ভুইয়াকে বৃহস্পতিবার প্রত্যাহার করা হয় বলে জানান চট্টগ্রাম নগর পুলিশের কমিশনার আবদুল জলিল মণ্ডল।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, ওসিকে প্রত্যাহারের পর তাকে দামপাড়া পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

সদরঘাট থানায় দায়িত্বরত পরিদর্শক (তদন্ত) মর্জিনা আক্তার ওসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

গত ১৯ মার্চ নগরীর সদরঘাট থানার দক্ষিণ নালাপাড়া হোটেল আল ইসলাম থেকে স্ত্রীসহ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক উপ-সম্পাদক আব্দুর রহিম জিল্লুকে আটক করে পুলিশ।

এরপর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা থানা ঘেরাও করে ভাংচুর চালায়। পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

ওই দিন রাতে কোতোয়ালি জোনের সহকারী কমিশনার মো. মাইনুদ্দিনকে এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন পুলিশ কমিশনার।

এদিকে বুধবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফরিদ আলমের আদালতে ‘নির্যাতন ও হেফাজত মৃত্যু নিবারণ’ আইনে ওসি মাইনুল ইসলামসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রহিম জিল্লু।

আদালত পুলিশ কমিশনারকে মামলা নেওয়ার নির্দেশ দিয়ে কোতয়ালি জোনের সহকারী কমিশনারকে দিয়ে তদন্তের নির্দেশ দেয়।

নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী আব্দুর রহমান জিল্লু বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির ঘটনায় সাংসদ এমএ লতিফের বিরুদ্ধে করা একটি মামলার বাদী।

এছাড়া ছবি বিকৃতির প্রতিবাদে গঠিত ‘জাগ্রত ছাত্র, যুব, জনতা’ সদস্য সচিব।

গত বছর খুলশী থানার ওসির দায়িত্বে থাকার সময় সরকার দলীয় কাউন্সিলর প্রার্থীর পক্ষ নেওয়া এবং ২০ দলীয় জোট প্রার্থীর ওপর হামলার ঘটনায় মামলা না নেওয়ায় নির্বাচন কমিশনের আদেশের পর মাইনুল ইসলামকে প্রত্যাহার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশে সংযুক্ত করা হয়েছিল।

পরে তাকে সদরঘাট থানার ওসি’র দায়িত্ব দেওয়া হয়।

-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like