‘বাজে মন্তব্য’ করায় ঈশানার বিরুদ্ধে মামলা

গত ৩ ফেব্রুয়ারি ঈশানার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন প্রেম। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে আসামি মৌনিতা খান ঈশনাকে ২২ র্মাচ আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন। কিন্তু ঈশানা আদালতে হাজির না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

এ ব্যাপারে গ্লিটজকে ঈশানা বললেন,“ মহামান্য আদালতের প্রতি সর্ম্পূন শ্রদ্ধা রেখেই বলছি গতকাল যে আমার হাজিরার তারিখ নিধর্ারিত ছিল সে ব্যাপারে সমনটা আমি হাতে পাইনি। তবে আমি লোকমুখে শুনেছিলাম আমার বিরুদ্ধে মহামান্য আদালত সমন জারি করেছেন। কিন্তু এই বিষয়টি নিয়ে যখন আমার আইনজীবীর সাথে পরামর্শ করি তখন তিনি আমাকে বলেন যে, মহামান্য আদালতের তরফ থেকে আমাকে অফিসিয়ালটি নোটিশ প্রেরণ করা হবে। যখন আপনি সেই নোটিশটি গ্রহণ করে সেখানে স্বাক্ষর করবেন কেবল তখনই এটা গ্রহনযোগ্য হবে…কিন্তু সমন হাতে পাইনি…আমার আইনজীবি আজ আদালতে জানিয়েছেন যে, সমনটি হাতে না পাওয়ার কারণে আমরা আদালতে উপস্থিত হতে পরিনি।”

এমন কি ঘটলো যে ঈশানার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে হলো? এর উত্তরে গ্লিটজকে প্রেম বললেন,“ কিছুদিন আগে শুটিং সেটে ঈশানা আমাকে নিয়ে বিভিন্ন ধরনের বাজে মন্তব্য ও অসম্মানজনক কথাবার্তা বলেন। যার ভয়েজ রেকর্ডিং আমি হাতে পাই। কিন্তু ঈশানা এই বিষয়টি অস্বীকার করলে আমি তাকে ভয়েজ রেকর্ডিং শুনাই। এছাড়াও সে যাদের সামনে বলেছে এমন পাঁচ জন সাক্ষীও তার সামনে হাজির করি। তখন অভিনেত্রী ডলি জহুরের মধ্যস্থতায় তাকে সম্মান দেখিয়ে আমি বিষয়টি আর তেমন গুরুত্ব দেই নি। কিন্তু পরবর্তীতে ঈশানা আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় বাজে মন্তব্য করায় আমার মানহানি হয়েছে বিধায় আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছি।”

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গ্লিটজকে ঈশানা বললেন,“ এই মুহূতর্েই এই বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাইছি না। তবে যখন যেখানে যা বলার আমি সেখানে তা অবশ্যই বলবো। এর চেয়ে বেশি কিছু আর এই বিষয়ে বলতে চাই না।”

মানহানির মামলা ছাড়াও ঈশানার বিরুদ্ধে ১ র্মাচ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিশেষ আইনের ৫৭ ধারায় আরো একটি মামলা করেছেন বলে গ্লিটজকে জানালেন প্রেম। তবে এই মামলার ব্যাপারে এখনো কিছুই জানেন না বললেন ঈশানা।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like