প্রেম-বিয়ে-পরকীয়া বিষয়ক অদ্ভুতুড়ে আইন

law_652139108বাংলানিউজ : আইনানুযায়ীই চলে দেশ, চলে বিশ্ব। নানা দেশের নানা আইন। এসব আইনের মধ্যে অদ্ভুত কিছু আইনও প্রচলিত আছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে।

আমেরিকায় আছে এরকম আরো অনেক অদ্ভুত আইন। ইন্ডিয়ানায় প্রতিদিনই গাড়ি কেনা-বেচা করা যায়। শুধু রোববারেই আপনি সেখানে কোনো গাড়ি কেনা বেচা করতে পারবেননা।

কুকুরের নাম মানুষের নামে রাখা এখন হাল-ফ্যাশন। আমাদের দেশেও এরকম মানুষের নামধারী অনেক কুকুর আছে। শুধু নাম নয়, পদবী ধারী কুকুরও আছে আমাদের দেশে। কিন্তু ফ্রান্সে শুকরের নাম নেপোলিয়ন রাখা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অন্য যেকোনো নামই রাখা হোক, তাতে কোনো দোষ নেই। শুধু নেপোলিয়ন রাখা যাবেনা।

আমাদের দেশে রাতের বেলাতেও অনেক গাড়ির হেডলাইট ঠিকমতো জ্বলেনা। জ্বলবে কি করে? এসব গাড়ির ফিটনেসই নেই। তারপরও দিব্বি চলছে। কিন্তু সুইডেনে রাত আর দিন নেই, শীত আর গ্রীষ্ম নেই-সব সময়ই হেডলাইট জ্বালিয়ে রাখতে হয়।

মানুষের মৃত্যু কোথায় হবে তা কি আমাদের জানা আছে? যেকোনো জায়গায়ই মানুষের মৃত্যু হতে পারে। কিন্তু ইংল্যান্ডের পার্লামেন্টে মৃত্যুবরণ করা বেআইনি। কিন্তু মৃত্যু বরণ করলে তার শাস্তি কী?

অস্ট্রেলিয়াতে বাচ্চারা সিগারেট কিনতে পারবে না। এ আইন আমাদের দেশেও আছে। কিন্তু সেখানে বাচ্চাদের  সিগারেট খেতে কোনো বাধা নেই।

কাক কালো। তাই সাবান চুরি করা কাকেরই শোভা পায়। বুঝি বা এজন্যই অ্যারিজোনায় সাবান চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়লে তাকে ওই সাবান দিয়ে গোসল করতে হয়, যতক্ষণ না সাবানটি পুরোপুরি  শেষ হয়।

গাড়ি পারষ্কার করা খুবই কষ্টসাধ্য। যে করে সে-ই জানে। তাই আমাদের দেশের রাস্তাগুলোতে দেখো যায় ময়লা‍ গাড়ির অবাধ বিচরণ। এজন্য আমাদের দেশে কোনো শাস্তির বিধান না থাকলেও রাশিয়ায় গুনতে হবে আপনাকে  জরিমানা।

পরকীয়ার জন্য খুন আমাদের দেশে অহরহই হচ্ছে। শুধু স্বামীই নয়, পরকীয়ার জন্য সন্তানদেরও হত্যা করা হয় এখন। পরকীয়ার জন্য আইনত এক ধরনের শাস্তির বিধান আছে। কিন্তু তাই বলে খুন করাও বৈধ? হ্যা, হংকংয়ে স্ত্রী পরকীয়া করলে স্বামী তাকে খুনও করতে পারে। শর্ত একটাই-এ খুন করতে হবে খালি হাতে। কোনো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীকে খুন করা যাবেনা।

আমাদের দেশে কোনো মেয়েকে প্রণয়ের প্রস্তাব দিলে তা গ্রহণতো দূরের কথা, ভবিষ্যতে সে মেয়ের সামনে পড়লেও বিপদের আশঙ্কা আছে। দিন যদিও কিছুটা বদলেছে বৈকি। কিন্তু খোদ জাপানে নাকি কোনো মেয়েকে প্রস্তাব দিলে আইনানুযায়ী তা মেয়েটি গ্রহণ করতে বাধ্য। আমাদের দেশে কোনো ছেলে এরকম প্রস্তাব দিলে তাকে আইনের হাতে তুলে দেয়া হয় এই যা।

বিয়ের অনেক দিনে হয়েছে? নিজের বিয়ের তারিখটি আর কিছুতেই মনে করতে পারছেন না? বড়ই বিপত্তির কথা। এমন বিপাকে অনেকেই পড়েছেন সন্দেহ নেই। তাই ‍অনেকে বছরে মাঝে মাঝেই এ দিনটি মনে রাখার চর্চা করেন। স্ত্রীর জন্মদিনের কথা ভুলে গেলেও আছে একই বিপত্তি। সামাওয়ে তাই আইন করে স্ত্রীর জন্মদিন মনে রাখার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। সেখানে বউয়ের জন্মদিন ভুলে যাওয়া বেআইনি।

তুরস্কে প্রতিবেশীর ছেলেমেয়ে, বউ, চাকর-বাকরের প্রেমে পড়া নিষেধ। এটাতো স্বাভাবিক। কিন্তু তাই বলে পোষা প্রাণীর প্রেমেও পড়া যাবেনা? তুরস্কে প্রতিবেশির পোষা প্রাণীর প্রেমে পড়াও আইনত নিষিদ্ধ।

আমেরিকার গুয়ামে কোনো কুমারী মেয়ে বিয়ে করতে পারে না। সেখানে আছে কিছু পেশাদার পুরুষ। যারা অর্থের বিনিময়ে কুমারীত্বের অভিশাপ মোচন করে। কিন্তু বিয়ে হলেই হবে না। বাসর রাতে শাশুড়ির উপস্থিতি বাধ্যতামূলক? হ্যা, কলাম্বিয়ায় মেয়ের বাসর রাতে তার মায়ের উপস্থিতি আইনত বাধ্যতামূলক!

মাসে একবার বউ পেটানো যাবে-একথাতো আমরা সবাই জানি। তবে ভুল করেও একাজটি আমাদের দেশে করতে যাবেন না। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন অনুযায়ী আছে কঠোর শাস্তি। কিন্তু আরাকানসাসে মাসে একবার বউ পেটানো যায় বটে। একবার মানে একবারই। দুইবার বউ পেটালে কিন্তু আছে শাস্তি।

বউ পেটানো নিয়ে আছে আরো আইন। নেভাদায় বউ পিটিয়ে কেউ ধরা পড়লে তাকে আট ঘণ্টা বেঁধে রাখা হয়। বুকে লিখে দেয়া হয় ‘ওয়াইফ-বিটার’। আমাদের দেশে বউ পেটালে? বাপের বেটা আর কি!

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like