বিএনপির কাউন্সিলে জাতির আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন হবে -গয়েশ্বর

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির আসন্ন ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের মধ্য দিয়ে জাতির আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটবে বলে মনে করেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

শনিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় জাতীয়তাবাদী যুবদল আয়োজিত এক দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দশম কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে এ মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ‘নেতা’ নির্বাচন করতে অতীতেও ভুল করেন নাই, এবারও ভুল করবেন না। আশা করি, সরকারের  নির্যাতন-নিপীড়ন শিকার করেও বিএনপির বিগত আন্দোলন-সংগ্রামে যারা সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন, তারাই দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসবেন।’

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপির বিগত আন্দোলন- সংগ্রামে যারা নিষ্ক্রিয় ও পলাতক ছিল, সেই সব মুসায়েদ ও চাটুকারেরা নিজেদের অবস্থান ধরে রাখার জন্য এখন সবচেয়ে বেশি সক্রিয়। এরা নেত্রীর (খালেদা জিয়া) সামনে তাদের চেহারা দেখাতে ব্যস্ত। এরা কখনও দলের বন্ধু হতে পারে না। বরং এরা দলের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরূপ। এদের বিরুদ্ধে হাই এন্টি-বায়োটিক  দিতে হবে।’

বিএনপির এ নীতি-নির্ধারক বলেন, ‘নেত্রীর সামনে এখন যারা প্রতিদিন চেহারা দেখাচ্ছেন, ধরণা দিচ্ছেন- বিগত আন্দোলন-সংগ্রামে তারা সঠিকভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করেননি। দলের জন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে যারা সঠিক দায়িত্ব পালন করেছেন-করছেন,  তারা নেতা-নেত্রীর সামনে গিয়ে চেহারা দেখানোর সময় পান না। আশা করি, বিগত আন্দোলন- সংগ্রামে যারা সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন, নতুন কমিটিতে নেত্রী তাদের যথাযথ মূল্যায়ন করবেন। ’

গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘কাউন্সিল নেতা বানানোর জায়গা নয়। বর্তমান অবস্থান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে জাতির আশা-আকাঙ্ক্ষা বাস্তবায়ন করার মঞ্চ। বিএনপির আসন্ন ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের মধ্য দিয়ে জাতির আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটবে।’

তারেক রহমানকে সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব দেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতিতে সাধারণত সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানই দলের দায়িত্ব পালন করে থাকেন। বেগম খালেদা জিয়া বিএনপির চেয়ারপারসন হিসেবে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তাছাড়া তারেক রহমানের এখন বাংলাদেশে আসারও কোনো পরিবেশ নেই। সবদিক বিবেচনা করে দলের পক্ষ থেকে তারেক রহমানকে একটি সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব দেয়া হোক, যেটি তিনি পালন করবেন। এতে দলের নেতা-কর্মীরা আরো উৎসাহিত হবেন।’

যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের সভাপতিত্বে মিলাদে আরো উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদসহ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

-বাংলামেইল২৪

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like