ডাবের পানির উপকারিতা

স্বাস্থ্য ডেস্ক : ডাবের পানি অত্যন্ত উপকারী একটি প্রাকৃতিক পানীয়। কোনোরকম কৃত্রিমতার ছোঁয়া ছাড়াই সরাসরি ডাব থেকে পাওয়া যায় সুমিষ্ট পানি। বেশ কিছু গুণের কারণে ডাবের পানি সবার কাছে কদর পায়। বিশেষ করে গরমের এই সময়টাতে নিজেকে তরতাজা রাখতেও ডাবের পানির তুলনা হয় না। গরমে ক্লান্তির দুপুরে সুমিষ্ট স্বাদের পানি পান এনে দেয় অন্যরকম তৃপ্তি। শরীরের সুস্থতা থেকে শুরু করে রূপচর্চাতে ডাবের পানির অনেক অবদান। অনেক গুণের মধ্যে অন্যতম কিছু গুণাবলী তুলে ধরা হল।

– ডাবের পানি গ্যাসের প্রাকৃতিক ওষুধ হিসেবে কাজ করে। নিয়মিত ডাবের পানি করলে গ্যাসজনিত পেটের বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

– ডাবের পানি রক্তের ঘনত্ব বৃদ্ধি করে।

– নিয়মিত ডাবের পানি পান করলে মুখে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না।

– ফলের রসের থেকেও ডাবের পানির গুণাগুণ অনেক বেশি। ফলের রসের থেকে এতে অধিক পরিমাণ মিনারেল

থাকে।

– ডাবের পানির অন্যতম একটি গুণ হল- এতে ক্যালরি যেমন কম তেমনি সুগারের পরিমাণও কম। ফলে ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য এটা বিশেষ উপকারী।

– প্রত্যেক দিন এক গ্লাস ডাবের পানি আপনার শরীরের অঙ্গগুলোকে সচল রাখতে সহায়তা করবে।

– ডাবের পানিতে পটশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম থাকে যা হৃদপিণ্ডের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে। এ কারণে হঠাৎ করে শ্বাস- প্রশ্বাসের হার বেড়ে গেলে এক গ্লাস ডাবের পানি খেয়ে নিতে পারেন।

– ডাবের পানির মধ্যে এমন কিছু উপাদান আছে যা ব্যকটেরিয়া ও ভাইরাস মারতে বেশ কার্যকরী। এ কারণে খাবারসহ অন্যান্য মাধ্যমে প্রত্যেক দিন যেসব ব্যকটেরিয়া ও ভাইরাস আমাদের পেটে প্রবেশ করে সেগুলো মারার জন্য এক গ্লাস ডাবের পানি খাওয়া যেতেই পারে।

– ত্বকের জন্য খুবই উপকারী ডাবের পানি। সচেতনরা নিয়মিত ডাবের পানি পানের মাধ্যমে নিজের ত্বকের নানান সমস্যা থেকে বাঁচাতে পারেন।

– ডাবের পানির অন্য আরেকটি গুণ হলো চুলের বৃদ্ধি ও খুশকি দূর করা। ডাবের পানি চুলের পুষ্টি যোগানোর পাশাপাশি খুশকি দূর করতেও সহায়তা করে।

-বাংলামেইল

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like