কাউন্সিলের নামে বিএনপি তামাশা করছে

রাজনীতি ডেস্ক : অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের নামে বিএনপির কাউন্সিল একটা তামাশা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোববার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির কাউন্সিলে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারপারসন ও ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। চেয়ারপারসন ও ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অন্য কেউ মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে তাদেরকে অপমান না করার জন্য গোপনে বলা হয়েছে। গোয়েন্দা রিপোর্ট আছে। কাজেই বিএনপি কাউন্সিল নিয়ে রঙ-তামাশা করছে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাউন্সিল হবে। সেখানে প্রকাশ্যে শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব করা হবে, সমর্থন হবে। তবে কেউ প্রার্থী হতে চান তাতে কোনো বাধা নেই। আমাদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রকাশ্যে নির্বাচন হবে। বিএনপির সকালে একজন, বিকেলে একজন নেতা নির্বাচিত হয়। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতা নির্বাচিত হয় সম্মেলনের মাধ্যমে। কাউন্সিল ছাড়া কেন্দ্রীয় কমিটি পরিবর্তন হয় না। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি যখন-তখন পরিবর্তন হয়।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি এখন আওয়ামী লীগ ফোবিয়ায় আক্রান্ত। কথায় কথায় আওয়ামী লীগকে দায়ী করে। তারা (বিএনপি) আন্দোলনে ব্যর্থ, দায়ী আওয়ামী লীগ! নির্বাচনে আসে নাই, দায়ী আওয়ামী লীগ! পৌর নির্বাচনে পরাজিত হয়েছে, দায়ী আওয়ামী লীগ! মির্জা ফখরুলের ভাই মেয়র হয়েছে, দায়ী কে? আওয়ামী লীগ! ইউনিয়ন পরিষদে তারা প্রার্থী দিতে পারে নাই, এটার জন্য দায়ী আওয়ামী লীগ!’

তিনি বলেন, ‘পত্রিকাতে আমরা এমনও খবর দেখেছি, বিএনপির তৃর্ণমূলের অনেক নেতা ধানের শীষ প্রতীক না নিয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। কারণ, এখন তাদের (বিএনপি) মধ্যে একটা ভীতি কাজ করছেন।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে দেশে-বিদেশে অপ-প্রচার চলছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই অপ-প্রচারকে প্রতিহত করতে হবে। নতুন ষড়যন্ত্র করছে, সরকার পরিবর্তন করার চক্রান্ত করছে। আমি স্পষ্ট একটা কথা বলতে চাই, সরকার পরিবর্তনের জন্য বিএনপিকে আরেকটা নির্বাচনের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।’

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা কামাল আহমেদ মজুমদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম কামাল হোসেন, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম প্রমুখ।

-বাংলামেইল

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like