জরায়ু প্রতিস্থাপন করলেন এ বার মার্কিন চিকিৎসক

স্বাস্থ্য ডেস্ক: জরায়ুর সমস্যা আর বাধা হতে পারবে না মাতৃসুখ পাওয়া থেকে। কারণ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বলে আস্ত জরায়ুটাই ট্রান্সপ্ল্যান্টেশনে সফল হয়েছেন বিজ্ঞানীরা। গত বুধবার আমেরিকার এক হাসপাতালে টানা ন’ঘণ্টা ধরে অস্ত্রোপচার করার পর এই সুখবরটা দুনিয়াকে জানান আমেরিকার ক্লিভল্যান্ড হাসপাতালের চিকিৎসকের দল। সুস্থও রয়েছেন ২৬ বছরের এই মহিলা।

তবে চিকিৎসকেরা জানান, এই প্রতিস্থাপন সাময়িক। মা হওয়ার পর তা আবার অস্ত্রোপচার করে দেহের বাইরে আনা হবে। কড়া ওষুধের প্রতিক্রিয়া রুখতেই নাকি এই সিদ্ধান্ত। তবে মা হওয়ার জন্য আপাতত একটা বছর তাঁকে অপেক্ষা করতে হবে।

চিকিৎসকেরা জানান, ঝুঁকি এড়াতে অস্ত্রোপচারের আগেই ওই মহিলার ডিম্বানু এবং তাঁর স্বামীর শুক্রানু সংগ্রহ করে রাখা হয়েছে। সময়মতো ভ্রুণটি জরায়ুতে স্থাপন করা হবে। একটা কিংবা দু’টো সন্তান জন্মানোর পর মহিলার ইচ্ছা অনুযায়ী তা আবার দেহের বাইরে বের করে আনা হবে। তা না হলে অঙ্গ প্রত্যাখান (অর্গান রিজেক্টশন) এড়াতে সারা জীবনই অনেক কড়া ওষুধ মহিলাকে খেতে হবে। যা তাঁর বিপদ ডেকে আনতে পারে।

এই চিকিৎসক দলের মুখ্য চিকিৎসক অ্যানড্রিস তাঁর চিকিত্‌সা জীবনে কিডনি, লিভার সহ ৫০০০-এরও বেশি অঙ্গ প্রতিস্থাপন করেছেন। এটাই তাঁর প্রথম ইউটেরাস প্রতিস্থাপন। তিনি জানান, শুধুমাত্র আমেরিকাতেই নাকি ৫০ হাজারেরও বেশি মহিলা জরায়ুর সমস্যায় ভুগছেন। তাঁদের অনেকেই জরায়ু প্রতিস্থাপনের ইচ্ছাও জানিয়েছেন। কিন্তু এত দিন তা করে ওঠা সম্ভব হয়নি।

তবে এটাই প্রথম জরায়ু প্রতিস্থাপন নয়। এর আগে একমাত্র সুইডেনই আমেরিকার মতো এই অস্ত্রোপচারে সফল হয়েছে। সুইডেনের করা অস্ত্রোপচারের পর ওই মহিলা ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে এক সন্তানের জন্মও দেন।

তার পর অনেক দেশই জরায়ু প্রতিস্থাপনের অস্ত্রোপচার করেছে। কিন্তু তাতে সফলতা মেলেনি।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like