বাংলাদেশের উন্নয়নে সহযোগিতা ‘দিয়ে যাবে’ রাশিয়া

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার কার্যালয়ে বিদায়ী সাক্ষাতে এ কথা বলেন রাষ্ট্রদূত।

চার বছর বাংলাদেশে দায়িত্বপালনের সময় দুই দেশের সম্পর্ক এগিয়েছে উল্লেখ করে নিকোলায়েভ বলেন, ২০১৩ সালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর রাশিয়া সফর দুই দেশের সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

বাংলাদেশ-রাশিয়ার সম্পর্ক ধাপে ধাপে এগিয়ে যাচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় তিনি সাংস্কৃতিক সহযোগিতা আরও বৃদ্ধির ওপর গুরুত্ব দেন।

পাশাপাশি বাণিজ্য, অর্থনীতি, বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি সহযোগিতার বিষয়ে প্রস্তাবিত আন্তঃসরকার কমিশনের ওপরও গুরুত্বারোপ করেন বিদায়ী রাষ্ট্রদূত।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে রাশিয়ার ভূমিকার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।

যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ গঠনে রাশিয়ার অবদান, বিশেষ করে চট্টগ্রাম বন্দরকে মাইনমুক্ত করার কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “মুক্তিযুদ্ধে যারা আমাদের পাশে ছিলেন, তাদের সবসময় আমরা স্মরণ করি।”

দুই দেশের সম্পর্ক অব্যাহত রাখা ও নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া যেতে পারে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে বাণিজ্য বৃদ্ধিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা।

একই সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য আরও বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে সহযোগিতার জন্য রাশিয়াকে ধন্যবাদ জানান শেখ হাসিনা।

রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে শুভেচ্ছা জানান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like