ব্রাজিল ওপেনে খেলোয়াড়দের বল কুড়োনোর কাজ ‘বল ডগ’দের

ক্রীড়া ডেস্ক:50793-balldog-2-3-16

বলা হয় ঠিকঠাক প্রশিক্ষণ দিলে কুকুরও বাঘের কাজ করে। কথাটা সত্যি এবং প্রমানিতও। আরও একবার প্রমান হয়ে গেল কুকুরকে সঠিক প্রশিক্ষণ দিলে তারা পারে না এমন কোনও কাজ নেই। তার জন্য কোনও নামী বংশের দরকার হয় না। এমনই এক আশ্চর্য ঘটনা ঘটেছে ব্রাজিল ওপেনে।

সাধারণত টেনিস খেলার সময় বল কুড়োনোর জন্য লোক রাখা হয়। যাঁরা বলগুলি কুড়িয়ে এনে দেন। কিন্তু এ এক অন্য ছবি দেখা গেল ব্রাজিল ওপেনে। যেখানে বল কুড়োনোর জন্য কোনও মানুষ নন, এই কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সারমেয়দের।

আমরা সবাই জানি কুকুরের প্রভুভক্তি মারাত্মক। প্রভুর জন্য কুকুরটি নিজের প্রাণ পর্যন্ত দিয়ে দিতে পারে। আর তাঁকে যদি একটু ভালোবেসে কিছু শেখানো হয়, সে সেই শিক্ষার মান রাখে। পুলিস থেকে শুরু করে গোয়েন্দা সবারই তদন্তের জন্য প্রয়োজন হয় কুকুরকে। তাঁদের শিক্ষাগত যোগ্যতা আরও একবার প্রমান হয়ে গেল ব্রাজিল ওপেনের মঞ্চে।

এ এক অনবদ্য দৃশ্য। প্লেয়ারদের থেকে ছিটকে যাওয়া বল এক দৌড়ে মুখে করে এনে তাঁদের সামনে হাজির করছে কুকুরগুলি। তবে এর পিছনে একটা গল্প রয়েছে। সাধারণত রাস্তায় আমরা যে কুকুরগুলিকে ঘুরে বেড়াতে দেখি, তাদের প্রতি মানুষের ভালোবাসা একেবারেই নেই বললেই চলে। বেশিরভাগ মানুষই ল্যাব্রাডর, ডোবারম্যানের মতো নামী দামী কুকুর পুষতেই ভালোবাসেন। অ্যাসোসিয়েশন অফ অ্যানিমেল ওয়েলবিংয়ের এক প্রশিক্ষক জানিয়েছেন, ব্রাজিল ওপেনে ওই কুকুরগুলিকেই ‘বল ডগ’ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। এর মাধ্যমে তাঁরা বোঝাতে চেয়েছেন যে, রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো কুকুরদেরও বাড়িতে এনে ভালোবেসে পরিচর্যা করা যায়। তাদেরও দত্তক নেওয়া যায়।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like