একুশে টিভির সালামের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

জাতীয়:ETV_404566212

ভুয়া বিল-ভাউচারের মাধ্যমে বেসরকারি একুশে টেলিভিশনের প্রায় ৩৪ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কারাগারে থাকা প্রতিষ্ঠানটির সাবেক চেয়ারম্যান আবদুস সালামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক)।

বুধবার (০২ মার্চ) সকালে তেজগাঁও থানায় দুদকের উপ-পরিচালক শামসুল আলম বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন (মামলা নং ৪)।

মামলার বিষয়টি দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন।

তিনি এজাহারের বরাত দিয়ে বলেন, বেসরকারি একুশে টেলিভিশনের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকাকালে আবদুস সালাম প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৩৪ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

অপরাধের প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় গত মঙ্গলবার (০১ মার্চ) বিকেলে তার বিরুদ্ধে মামলার অনুমোদন দেয় কমিশন।

জানা গেছে, ‌ইটিভির সাবেক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আরও একাধিক অভিযোগের অনুসন্ধান চলছে।

রাষ্ট্রীয় দুর্নীতি বিরোধী সংস্থাটির দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, ইটিভির বিজনেস প্রমোশন, লিগ্যাল, বিনোদনসহ বিভিন্ন খাতের ভুয়া বিল দেখিয়ে আবদুস সালাম প্রায় ৩৪ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন।

দুদকের অনুসন্ধান প্রতিবেদনে এসব বিষয় তুলে ধরা হয়েছে। অনুসন্ধানকালে দুদকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ইটিভি অফিস পরিদর্শনে গিয়ে বিভিন্ন নথিপত্র সংগ্রহ করে আত্মসাতের এ তথ্য পেয়েছেন।

দুদকের অনুসন্ধান টেবিলে থাকা অভিযোগ বলছে, ইটিভির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম তথ্য গোপন করে বিদেশি কোম্পানি ‘সিটিকপ’র নামে থাকা ইটিভি’র শেয়ার স্থানান্তরের অর্থ হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে পাচার করেছেন। এ অভিযোগটি বর্তমানে অনুসন্ধানাধীন।

এছাড়া ইটিভির শেয়ার লোকাল শেয়ারহোল্ডারদের কাছ থেকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে নিজস্ব লোকজনের নামে হস্তগত করারও অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। প্রাথমিক তথ্যে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় দুদকের বিশেষ অনুসন্ধান ও তদন্ত শাখা অনুসন্ধান শুরু করে। অনুসন্ধানটি তদারক করছেন পরিচালক মো. নূর আহম্মদ।

রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় গ্রেফতার হয়ে আবদুস সালাম এখন কারাগারে রয়েছেন।

পর্নোগ্রাফির মামলায় গত বছরের ৬ জানুয়ারি আবদুস সালামকে গ্রেফতার করা হয়। ২০১৪ সালের ২৬ নভেম্বর এক নারী বাদী হয়ে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে ওই মামলা করেন। গত বছরের ৮ জানুয়ারি বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও আবদুস সালামসহ আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে আরেকটি মামলাও দায়ের করা হয়। বর্তমানে সালাম কারাগারে রয়েছেন।

-বাংলানিউজ

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like