ঢাকা বারে আওয়ামীপন্থীদের নিরঙ্কুশ বিজয়

আইন-আদালত ডেস্ক : দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম বার খ্যাত ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০১৬-২০১৭ কার্যকরী কমিটির নির্বাচনে আওয়ামীপন্থী সাদা প্যানেলের নিরঙ্কুশ বিজয় ও বিএনপিপন্থী নীল প্যানেলের ভরাডুবি হয়েছে। শনিবার ভোর ৬টায় বারের প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. শাহআলম খানের ঘোষিত আনুষ্ঠানিক ফলাফলে এই তথ্য জানা গেছে।

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ২১টি পদে আওয়ামীপন্থী সাদা প্যানেলের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এছাড়া  সিনিয়র সহ-সভাপতি, ট্রেজারার, সমাজকল্যাণ সম্পাদক ও তিনটি সদস্যপদসহ মোট ৬টি পদে জয় পেয়েছেন বিএনপি-জামায়াতপন্থী আইনজীবীরা।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির পরেই ঢাকা বারের নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্ববহ। সারাদেশের আইনজীবী এবং রাজনীতি সচেতন নাগরিকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল এই নির্বাচন।

আওয়ামীপন্থী সাদা প্যানেল থেকে সাইদুর রহমান মানিক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী আয়ুবুর রহমান নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া সাদা প্যানেল থেকে সহ-সভাপতি পদে আবু বারেক ফরহাদ, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে আব্দুস সালাম খান, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. শাহাদাত হোসেন ভুইয়া, লাইব্রেরি সম্পাদক পদে আলী আহমেদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে লাকী আক্তার ফ্লোরা, দপ্তর সম্পাদক পদে আব্দুল হাই মামুন, এবং খেলাধুলা সম্পাদক পদে মো. বাহারুল আলম বাহার নির্বাচিত হয়েছেন।

অপরদিকে নীল প্যানেলের ব্যাপক ভরাডুবির মধ্যেও সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে আফেরোজ বেগম শেলী, ট্রেজারার পদে আবু বকর সিদ্দিকী ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে শাফিকুল ইসলাম নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়াও ১৫টি সদস্য পদের মধ্যে সাদা প্যানেল থেকে ১২জন এবং নীল প্যানেল থেকে ৩ জন নির্বাচিত হয়েছেন।

সদস্য পদে সাদা প্যানেলের নির্বাচিত প্রার্থীরা হলেন, অ্যাডভোকেট আমিনুল আহসান মাসুম, ইমারত হোসেন বাচ্চু, হাজেরা বেগম আজরা, মোহাম্মাদ আবু সাঈদ সিদ্দিক টিপু, নাসিম জাহান রুবি, নুরজাহান আক্তার পারভীন, মরিয়ম বেগম তুলি, সাহিদা পারভীন নদী, মো. বিল্লাল হোসেন লিজন, নুরুল ইসলাম তালুকদার, তাইবুর রহমান তুহিন ও মোহাম্মাদ নুর হোসেইন।

সদস্য পদে নীল প্যানেলে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন, অ্যাডভোকেট আজমেরী আহমেদ চৈতি, মো. আব্দুল মোমেন খান মামুন ও মোহাম্মাদ রোকনুজ্জামান সুজা।

শুক্রবার দুপুর ১২টায় এই ভোট গণনা শুরু হয়। পুরোটা সময় বাংলামেইলকে নির্বাচনী আপডেট জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের সদস্য অ্যাডভোকেট মো. মহসিন মিয়া, অ্যাডভোকেট তাছলিমা ইয়াসমিন (দিপা) ও অ্যাডভোকেট ফরিদা ইয়াসমিন জেসি।

মাত্র দুই হাজার ভোট গণনার পরই বিএনপি জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের ভরাডুবির ক্ষতচিহ্ন স্পষ্ট থেকে স্পষ্টতর হতে থাকে। এরপর সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বিএনপি জামায়াতপন্থী আইনজীবীদের মাঝে বাড়তে থাকে হতাশা। একইসঙ্গে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের মাঝে বাড়তে থাকে আনন্দোচ্ছ্বাস।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দুইদিনব্যাপী নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয় এবং ২৫ ফেব্রুয়ারি এই ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণভাবেই সমাপ্ত হয়। উভয় দিনই সকাল ৯টা থেকে মাঝে ১ ঘণ্টা বিরতি দিয়ে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

মোট ১৫ হাজার ৫০ জন আইনজীবী ভোটারের মধ্যে ৮ হাজার ১৩৪ জন আইনজীবী ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। প্রথম দিন বুধবার ২ হাজার ৯৭৫ জন এবং বৃহস্পতিবার ৫ হাজার ১৫৯ জন আইনজীবী ভোটাধিবার প্রয়োগ করেন।

-বাংলামেইল

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like