জিরো ফিগারে পৌছতে চান? তাহলে কী খাবেন আর কী খাবেন না

স্বাস্থ্য ডেস্ক :  স্লিম অ্যান্ড ট্রিম। এখন এটাই তো ফ্যাশন। জিরো ফিগারে পৌছতে চান? তাহলে কী খাবেন আর কী খাবেন না? আসুন দেখে নেওয়া যাক।
স্লিম হতে গিয়ে অনেক সময়ই পুষ্টির কথা ভুলে যাই আমরা। কিন্তু তা করলে তো অসুস্থ হয়ে পড়বেন। আসুন জেনে নেওয়া যাক রোগা হতে ডায়েটে কী কী রাখা উচিত।

দই – ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ, ডিনার সবেতেই দই চলতে পারে। এমন কি স্ন্যাক্স হিসেবে বা শেষপাতেও খেতে পারেন দই।

বাদাম – খিদে পেলে বাদান খান। অল্প অল্প খিদে পেলে একমুঠো বাদাম মুখে ফেলে চিবোতে থাকুন। প্রোটিন, ফাইবার ও প্রয়োজনীয় ফ্যাট থাকায় খিদেও মিটবে, ওজনের খেয়ালও রাখবে।

আমন্ড – আমন্ডে ক্যালরি অনেকটাই। তাই খিদের সময় দু’তিনটে আমন্ড খেয়ে নিলেও চলবে।

ডাল – ডালের প্রোটিন ও ফাইবার শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী। রোগা হতে চাইলে ডায়েটে অবশ্যই রাখুন ডাল।

শশা – লো-ক্যালরি সবজি হিসেবে শশার বিকল্প নেই। শরীর হাইড্রেটেড রাখতেও উপকারী শশা।

চিকেন – শরীরের জন্য সবচেয়ে প্রয়োজনীয় প্রোটিন। এই প্রোটিনের চাহিদা সবচেয়ে ভাল মেটাতে পারে চিকেন।

আপেল – আপেলে থাকে ফাইবার। সেই সঙ্গেই ভিটামিন সি, এ এবং প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট। অথচ ক্যালরি প্রায় নেই বললেই চলে।

রুটি – ভাতের বদলে খান হাতে গড়া রুটি, ব্রাউন ব্রেড বা হোল হুইট পাস্তা খান।

ডিম – ব্রেকফাস্টে অবশ্যই থাকুক ডিম। এতে পুষ্টি যেমন হবে তেমনই সারা দিন পেট ভরা লাগবে, এনার্জি বাড়বে।

সবুজ শাক-সব্জি – পর্যাপ্ত সবুজ শাক সব্জি খেতে হবে। রং যত সবুজ স্বাস্থ্যের জন্য তত ভাল।

ওটস – দামও কম, বানানোও সোজা। অথচ পুষ্টিগুণে ভরপুর। ব্রেকফাস্টে ওটস খেলে ওজন নিয়ে মাথা ঘামাতেই হবে না।

সামুদ্রিক মাছ – সামুদ্রিক মাছে থাকে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। হার্ট সুস্থ রাখতেও দারুণ উপকারী।

ডার্ক চকোলেট – রোগা হতে গেলে চটজলদি স্ন্যাকস হিসেবে ম্যাজিকের মতো কাজ করে ডার্ক চকোলেট।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like