নারীদের ঘনঘন প্রস্রাব, কিন্তু কেন?

স্বাস্থ্য ডেস্ক : ঘনঘন প্রস্রাবের সমস্যা অনেক নারীরই। মনে হয় ইউরিনারি ব্লাডার যেন এখনই ফেটে যাবে। প্রতি ঘণ্টায় ছুটতে হয় টয়লেটে। কিন্তু কেন এই ঘনঘন প্রস্রাব?

ভুক্তভোগী মানুষের অধিকাংশের ক্ষেত্রে দেখা গেছে মূত্রথলি দুর্বল। প্রস্রাব জমানোর ক্ষমতা নেই। দিনে কমপক্ষে আটবার প্রস্রাব করতে যেতে হয় তাদের।

অতিরিক্ত প্রস্রাবের কারণ-
শরীরে অন্য কোনো রোগ বাসা বাঁধলে ঘনঘন প্রস্রাব হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হতে পারে।
সঙ্গে জ্বর, তলপেটে ব্যাথা হলে জানতে হবে মূত্রনালীতে সংক্রমণ হয়েছে।
ঘনঘন প্রস্রাব ও অনেক পরিমাণে প্রস্রাবের কারণ হতে পারে ডায়াবিটিজ। প্রস্রাবের সঙ্গে শরীরের অতিরিক্ত গ্লুকোজ বেরিয়ে যায়।
গর্ভধারণের প্রথম কয়েকটি সপ্তাহে ঘনঘন প্রস্রাব হয়। জরায়ু ফুলতে শুরু করে বলে মূত্রথলিতে চাপ সৃষ্টি করে।
প্রস্টেট সমস্যাও এর জন্য দায়ি। প্রস্টেটের আকার বেড়ে গেলে মূত্রনালীতে চাপ পড়ে। প্রস্রাব বেরোতে অসুবিধে হয়। এর ফল ব্লাডারের দেওয়াল ঢিলে হয়ে যায়। বারবার প্রস্রাবের প্রয়োজন হয়।
ইন্টারস্টিশিয়াল সিস্টাইটিসের কারণে তলপেটে কিংবা ব্লাডারে যন্ত্রণা শুরু হতে পারে। ফলে বারংবার প্রস্রাব হতে শুরু করে।
উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে যেসব ওষুধ খেতে হয়, তার কারণেও বাড়তে পারে প্রস্রাবের মাত্রা।
স্ট্রোক কিংবা স্নায়ুজাতীয় অসুখ হলে বারবার প্রস্রাবের প্রয়োজন হয়।
মূত্রনালীতে ক্যানসার হলেও কিন্তু বারংবার প্রস্রাব পেতে পারে।

বাংলামেইল

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like