স্বপ্নের ফাইনালে উঠার হাতছানি বাংলাদেশের

ক্রীড়া ডেস্ক: নেপালকে হারিয়ে বৈশ্বিক কোন টুর্নামেন্টের সেমিতে উঠে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। এবার সেই ইতিহাসকে আরও রঙীন করার পালা। অপেক্ষা প্রথমবারের মতো যুব ক্রিকেট বিশ্বকাপের স্বপ্নের ফাইনালে উঠা। আর সেই স্বপ্ন পূরণে বাংলাদেশের সামনে বাধা ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যারা কি না, দীর্ঘ এক যুগ পর ফাইনালে উঠতে পাখির চোখ করে আছে। দুই দলেরই লক্ষ্য এক, ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করা, আর ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে ভারতের বিরুদ্ধে শিরোপার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়া। কাদের হবে স্বপ্নপূরুণ, বাংলাদেশ না ক্যারিবীয় যুবাদের?

আগামীকাল বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে যুব বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। সেমির পর ফাইনালে ওঠতে এক কদম দূরে জুনিয়র টাইগাররা। এতো দূর এসে নিশ্চয়ই সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিতে চাইবে না মিরাজ শিবির। দাঁতে দাঁতে চেপে লড়াকু মনোভাবেই এগিয়ে যেতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞবদ্ধ বাংলাদেশ। তবে চমকের অপেক্ষায় রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজও। ২০০৪ সালের পর প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠতে বাংলাদেশকে কোন প্রকার ছাড় না দেয়ার ঘোষণাই এসেছে গেইলদের উত্তরসূরীদের কাছ থেকে। মিরপুরে বারুদে উত্তাপ ছড়ানো এই ম্যাচটি শুরু হবে সকাল নয়টায়। সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি ও বিটিভি।

 

প্রথম সেমিফাইনালে শ্রীলংকাকে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারত। এবার মিরাজ-শান্তদের পালা। আর তাই সেমির আগে বড়রাও অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছেন যুবাদের। নাঈমুর রহমান দুর্জয়, মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মুশফিকুর রহিম যুব দলের সঙ্গে কথা বলেছেন। তারা মিরাজদের খেলার দিকে ফোকাস রাখতে বলেছেন। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা স্বাগতিক অধিনায়ক ফোকাস রাখতে চান শুধুই ম্যাচের দিকে। ফাইনাল শব্দটা মাথায় এনে চাপ নিতে চান না মেহেদি হাসান মিরাজ।

বুধবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে মেহেদী হাসান মিরাজ বলেন, ‘আমরা ফাইনালে ওঠা নিয়ে ভাবছি না। আমাদের পুরো ফোকাস থাকবে ম্যাচের দিকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আমাদের ব্যাটসম্যান ও বোলাররা যদি ভালো খেলে তাহলে সাফল্য নিশ্চিত পাবো আমরা।’

যুব বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচ থেকেই দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করছে মিরাজের দল। বিশ্বকাপে এখনও কোনো ম্যাচেই হারেনি স্বাগতিকরা। কোয়ার্টার ফাইনালে নেপালই যা একটু চাপে ফেলেছিল স্বাগতিকদের। এছাড়া বাকি ম্যাচগুলোতে দাপুটে জয় পেয়েছে স্বাগতিক শিবির। সেমিফাইনালে উঠে আসার পথে বাংলাদেশ হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া, স্কটল্যান্ড ও নেপালকে। দলের মূল শক্তি স্পিন। পেস বোলিংও খুব একটা খারাপ না। টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা ব্যাটিংয়ে যদি শুরুটা ভালো করে দিয়ে যেতে পারেন, তাহলে কাজটা সহজ হয়ে যেতে পারে মিরাজদের জন্য।

প্রথম দুটো ম্যাচের পর নাজমুল হাসান শান্ত শুধু কোয়ার্টার ফাইনালেই রান পাননি। জাকির হাসান অবশ্য নিজের সেরা দিয়েছেন সঠিক সময়েই। অধিনায়ক মিরাজের ব্যাট-বলে ফর্মের তুঙ্গে। বোলিংয়ে ক্যারিবীয়দের আটকানোর জন্য চার স্পিনের ফাঁদও তৈরি করেছে স্বাগতিকরা। বাংলাদেশ যুব দলের কোচ মিজানুর রহমান বাবুল বলেন, ‘ভালো করার জন্য আমরা প্রস্তত। ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রতিটি বোলার ও ব্যাটম্যানদের সম্পর্কে আমাদের ভালো ধারণা আছে। এমনকি ওদের পেসারদের সম্পর্কেও আমাদের ভালো ধারণা আছে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে বেশ আত্ববিশ্বাসী বাংলাদেশ। সেটা আসছে বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি সিরিজের সাফল্য থেকেই। যেখানে তিন ম্যাচের সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজেকে হোয়াইটওয়াশ করেছিল বাংলাদেশ (৩-০)। শুধু এই সিরিজেই নয়, ক্যারিবীয় যুবাদের বিপক্ষে বাংলাদেশের তরুণদের পারফরম্যান্স সব সমই আশা-জাগানিয়া। এখন পর্যন্ত মোট ১৭ বার মুখোমুখি হয়ে বাংলাদেশ জয় পেয়েছে ১২টিতেই।

যুব বিশ্বকাপের রেকর্ডও বেশ ভালো। তিনবারের মোকাবেলায় দুবার জিতেছে বাংলাদেশ। তবে মুখে যতোই বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখুক না কেন মাঠের লড়াইয়ে কোনোভাবেই ছাড় দিতে নারাজ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাছাড়া বাংলাদেশে টুর্নামেন্ট হচ্ছে বলেই ফাইনালে উঠার আত্ববিশ্বাস তাদের বেশ প্রখর। কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফাইনালে উঠেছিল একবার, সেটা ২০০৪ সালে। সেই টুর্নামেন্টও অনুষ্ঠিত হয়েছিল ঢাকায়। তবে পাকিস্তানের কাছে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করেছিল ক্যারিবীয় যুবারা। এবার বাংলাদেশে খেলা হচ্ছে বলে ফাইনালে খেলার স্বপ্নটা তাদের বেশ জোড়ালো।

এবার শক্তিশালী পাকিস্তানকে হারিয়েই সেমিতে উঠেছে ক্যারিবীয় যুবারা। স্বপ্ন আরেকবার ফাইনালে খেলার। ক্যারিবীয় যুবাদের অধিনায়ক শিমরন হেটমায়ার যেমন বললেন, ‘হ্যাঁ, আমরা পারব। দলের সবাই তাদের মৌলিক কাজটা ঠিকভাবে করতে পারলে আমাদের জেতার ভালো একটা সুযোগ আছে।’

এবার দেখার বিষয়, বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ফাইনালের মঞ্চে যাবে, নাকি এক যুগ পর দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালের টিকিট পাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের যুবারা। ফয়সালা হবে বৃহস্পতিবার, মিরপুরে।

-বাংলামেইল

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like