সাংসদ বদির বিরুদ্ধে আরো তিনজনের সাক্ষ্য গ্রহণ

bodi1455095296কক্সবাজারটাইমস ডেস্কঃ অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় কক্সবাজার-৪ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে আরো তিনজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত। বুধবার ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদার এই তিন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করে আগামী ২ মার্চ পরবর্তী সাক্ষ্যে গ্রহণের জন্য দিন ধার্য করেছেন । কক্সবাজার জেলার ঝিলংজা শাখার মার্কেন্টাইল ব্যাংকের অ্যাসিসটেন্ট ভাইচ প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজার পরিতোষ কুমার ধর, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের প্রধান শাখার সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট রবিউল ইসলাম এবং নির্বাচন কমিশনার সচিবালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব ফরহাদ হোসেন সাক্ষ্য দেন। এই তিনজনের মধ্যে গত ৩ ফেব্রুয়ারি পরিতোষ কুমার  ধরের আংশিক সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত। মামলাটিতে চার্জশিটভূক্ত ১২ জন সাক্ষীর মধ্যে নয়জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হল। সাক্ষ্য গ্রহণকালে অভিযুক্ত আসামি বদি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মামলাটিতে গত ৯ সেপ্টেম্বর বদির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। ২০১৪ সালের ২১ আগস্ট এমপি বদির বিরুদ্ধে দুদকের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুস সোবহানের দায়ের করা ওই মামলা নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামার বাইরে ১০ কোটি ৮৬ লাখ ৮১ হাজার ৬৬৯ টাকা অবৈধ সম্পদ থাকা, সম্পদ ৩৫১ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার অভিযোগ করা হয়। পাঁচ বছরে তার আয় ৩৬ কোটি ৯৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪০ টাকা বৃদ্ধি পায়। হলফনামা অনুসারে তার বার্ষিক আয় ছিল ৭ কোটি ৩৯ লাখ ৩৯ হাজার ৮০৮ টাকা। আর বার্ষিক ব্যয় ছিল ২ কোটি ৮১ লাখ ২৯ হাজার ৯২৮ টাকা। ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে জমা দেওয়া হলফনামায় তার বার্ষিক আয় ছিল ২ লাখ ১০ হাজার ৪৮০ টাকা। ব্যয় ছিল ২ লাখ ১৮ হাজার ৭২৮ টাকা। ওই সময় বিভিন্ন ব্যাংকে তার মোট জমা ও সঞ্চয়ী আমানত ছিল ৯১ হাজার ৯৮ টাকা।গত বছর ৭ মে দুদকের উপ-পরিচালক মঞ্জিল মোর্শেদ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলাটিতে তিনি গত বছর ১২ অক্টোবর ঢাকা সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান। পরবর্তীতে তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন পান।

 

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like