পুলিশ কেন এত বেপরোয়া, এরা কারা?

বাংলামেইল : দেশ যখন শান্তিতে চলছে তখন পুলিশের আচরণ দেখে মনে হচ্ছে এদের বড্ড বেশী বাড় বেড়েছে। এরা কেন এত বেপরোয়া আচরণ করছে, আসলে এরা কারা? কয়েকজন পুলিশের আচরণের জন্য  পুলিশের সব অর্জন ম্লান হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে এমন প্রশ্ন করেন সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিবাহ। গত বুধবার রাজধানীর মিরপুরে বাবুল মাতব্বর নামে এক চা দোকানিকে আগুনে পুড়িয়ে মারার অভিযোগের ঘটনা নিয়ে বৃহস্পতিবারে সংসদে প্রশ্ন উত্থাপণ করেন তিনি।

তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রশ্ন করে বলেন, ‘এরা বলছে- তারা নাকি দেশের রাজা, মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসলে এরা কারা, এদের বিরুদ্ধে কি শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিচ্ছেন?

পীর ফজলুর রহমান আরো বলেন, ‘সমস্ত অনলাইন পত্রিকা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাছের রাজা ইলিশ, আর মানুষের রাজা পুলিশ বলে অভিহিত করা হচ্ছে। পুলিশের এ আচরণের নিন্দা জানানো হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘দেশ যখন শান্তিপূর্ণভাবে অগ্রগতির ধারায় সামনে দিকে এগিয়ে চলছে, রাজনীতির পরিবেশ যখন শান্ত, এই মুহুর্তে পুলিশের মধ্যে এরা কারা, যারা এই ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি করে দেশকে ভিন্ন ধারায় প্রবাহিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিঘ্নিত করার জন্য সমগ্র পুলিশ বাহিনীর ইমেজ ক্ষুন্ন করছে।’

এ সংসদ সদস্য বলেন, ‘কেন পুলিশ এ ধরনের বেপরোয়া আচরণ করছে, তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে থেকে জনগনের সেবা বা নিরাপত্তা না দিয়ে কেন জনগণকে হেনস্থা করছে? পুলিশের কোন কোন কর্মকর্তা ধরাকে সরা জ্ঞান করে এমন আচরণ করছে। তারা কিভাবে এমন বেপরোয়া হয়ে উঠলো তা ভেবে দেখা দরকার।’

পীর ফজলুর রহমান আরও বলেন, ‘এই ধরনের কার্যক্রম কারা করছে এবং তাদের বিরুদ্ধে সরকার কি ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে তা জানাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ৩০০ বিধিতে বিবৃতি দাবি করেন তিনি।’

প্রসঙ্গত, বুধবার রাত নয়টার দিকে রাজধানীর মিরপুরে বাবুল মাতব্বর নামের একজন চা দোকানিকে চাঁদা না দেয়ার অপরাধে আগুন দিয়ে পোড়ানোর অভিযোগ উঠে পুলিশের বিরুদ্ধে। আহত বাবুল মাতব্বর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার মারা যান।

বাবুলের পরিবার পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করতে চাইলেও শাহআলী থানায় মামলা না নিয়ে অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে নেয়া হয়েছে।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like